স্বপ্নে নবীর আদেশ পেয়েই ইমরান খানকে বিয়ে বুশরার!

স্বপ্নে নবীর আদেশ পেয়েই ইমরান খানকে বিয়ে বুশরার!

ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদ হওয়া পাকিস্তানের সুপারস্টার ইমরান খানের তৃতীয় বিয়ে নিয়ে সরগরম আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। সাধারণ মানুষের মধ্যেও চর্চা কম নেই। বৃদ্ধ বয়সে এসে কেন হঠাৎ করে ব্যস্ত রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের মধ্যে তৃতীয় বিয়ের সিদ্ধান্ত নিলেন ইমরান খান? এই প্রশ্ন অনেকেরই।

এখানেও কিন্তু জড়িয়ে রয়েছে রাজনীতির মারপ্যাঁচ। পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফ (পিটিআই) দলের চেয়ারম্যান ইমরান খান এই মুহূর্তে পাকস্তানি রাজনীতিতে বড় নাম। বিরোধী রাজনীতিকদের মধ্যে তিনি, ইমরান খানই সবচেয়ে এগিয়ে। এহেন পিটিআই ভোটে ভালো ছাপ ফেললেও এখনো সরকার দখল করতে পারেনি। আগের ভোটেও ইমরানকে নিয়ে আশা করা হয়েছিল। তবে নওয়াজ শরিফের দল ভোট জিতে ক্ষমতা দখল করে।

আরও পড়ুন: ৬৫ বছর বয়সে ইমরান খানের তিন নম্বর শাদী

এই অবস্থায় ইমরানের নিকাহ-র পিছনে রয়েছে অন্য রহস্য। যাঁকে বিয়ে করেছেন ইমরান সেই বুশরা মানেকার আগের স্বামী ছিলেন খওহর মানেকা। পাকিস্তানের কাস্টমস এর এক সিনিয়র কর্মকর্তা। তাঁর সঙ্গে বুশরার কোনোরকম অশান্তির কথা তিনি অস্বীকার করেছেন। মানেকাও বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে কোনো গোলমালের কথা জানাননি।

তাহলে কেন বিচ্ছেদ হল বুশরা ও খওহরের?

খওহরের দাবি, একদিন বুশরা এসে তাঁকে জানান, তিনি মহানবী হজরত মোহাম্মদের (সা.) কাছ থেকে স্বপ্নাদেশ পেয়েছেন। সেখানে হজরত নিজে এসে বুশরাকে বলেছেন ইমরানকে বিয়ে করার জন্য। তাহলেই নাকি ইমরান সমস্ত বাধা পেরিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন। এবং সেটা হলে পাকিস্তান এই জর্জরিত অবস্থা থেকে মুক্তি পাবে ও অসাধারণ দেশে উন্নীত হবে।

আরও পড়ুন: ‘হিন্দুরা বেশি সন্তান জন্ম দিন, লালন-পালন করব সন্ন্যাসীরা’

এটাও শোনা গিয়েছিল যে বুশরা মানেকার সঙ্গে ইমরানের গত ১ জানুয়ারিই নিকাহ হয়ে গিয়েছিল। উপযুক্ত আধ্যাত্মিক সময় বিচার করে রবিবার তা আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করা হয়েছে।

সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া(কালের কণ্ঠ অনলাইন )  

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!