সিলেটে বিএনপির জামায়াত চ্যালেঞ্জ:সিলেটে জামায়াত পৃথক প্রার্থী দেবে

জামায়াতে ইসলামী রাজশাহী ও বরিশাল সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে একক প্রার্থী দিতে সম্মত হলেও সিলেটে তারা পৃথক প্রার্থী দেবে। গতকাল ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে জামায়াত নেতা মাওলানা আবদুল হালিম বিএনপিকে সাফ জানান যে এটা তাঁর দলের সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত। মাওলানা হালিম আরও বলেন, খুলনা, গাজীপুর ও ঢাকাসহ কোনো সিটিতেই জামায়াত কোনো প্রার্থী দেয়নি। এমনকি উপজেলা ও পৌর নির্বাচনেও জোটের প্রার্থীদের সমর্থন দিয়ে আসছে দলটি। কিন্তু সিলেটে তারা স্বতন্ত্র ব্যানারে প্রার্থী দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারণ সেখানে তাদের সাংগঠনিক অবস্থা অনেক ভালো।

বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ের এ বৈঠকে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান ছাড়াও জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মাওলানা আবদুল হালিম, জাতীয় পার্টি (জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, বিজেপি চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি, এনডিপি চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্তজা, এনপিপি চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, এলডিপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, জাগপা সভাপতি অধ্যাপিকা রেহানা প্রধান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুত্ফর রহমান, খেলাফত মজলিশের মহাসচিব ড. আহমেদ আবদুল কাদের, ডিএল সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, বিএমএলের সভাপতি এ এইচ এম কামরুজ্জামান খান, পিপলস লীগের মহাসচিব সৈয়দ মাহবুব হোসেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মুফতি রেজাউল করিম, ইসলামিক পার্টির আবুল কাশেম প্রমুখ অংশ নেন। বিকাল সোয়া চারটা থেকে সোয়া পাঁচটা পর্যন্ত এক ঘণ্টার বৈঠকে তিন সিটি নির্বাচন, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ, রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে মিয়ানমারের ওপর চাপ বৃদ্ধি ও এমপিওভুক্তির দাবিতে অনশনরত শিক্ষকদের প্রতি সংহতি প্রকাশসহ নানা বিষয়ে আলোচনা হয়। এ ছাড়াও কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের নির্যাতনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। মার সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগের দাবি জানান জোট নেতারা।

সিলেটে জামায়াতের মেয়র প্রার্থী নিয়ে কতিপয় মিডিয়ায় প্রচারিত বিভ্রান্তিকর রিপোর্টে বিস্ময় প্রকাশ

সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে জামায়াতের এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের রয়েছেন

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য জনাব নজরুল ইসলাম খান এবং বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে কোন কোন মিডিয়া যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তাতে বিভ্রান্তি সৃষ্টির অবকাশ থাকায় বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মাওলানা আবদুল হালিম আজ ৪ জুলাই নিম্নোক্ত বিবৃতি প্রদান করেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, “বিএনপির গুলশান অফিসে ২০-দলীয় জোটের বৈঠকে আমি উপস্থিত ছিলাম। কতিপয় মিডিয়ায় প্রচারিত বিভ্রান্তিকর রিপোর্টে আমি বিস্ময় প্রকাশ করছি। সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে জামায়াতের এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের রয়েছেন। এতে বিভ্রান্তির কোন অবকাশ নেই।”

রাসিক নির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন মুরাদ মোর্শেদ : রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন গণসংহতি আন্দোলনের রাজশাহী জেলা আহ্বায়ক ও মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মুরাদ মোর্শেদ। ১ জুলাই বাছাইয়ের সময় তার প্রার্থিতা বাতিল করেছিলেন রিটার্নিং অফিসার। এরপর আপিলের মাধ্যমে গতকাল প্রার্থিতা ফিরে পেলেন এই প্রার্থী। ফলে এখন নির্বাচনে অংশ নিতে তার আর কোনো বাধা থাকল না। গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাসিক নির্বাচনে আপিল কর্তৃপক্ষের প্রধান রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমান তার প্রার্থিতা ফিরিয়ে দেওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উৎসঃ   বিডি প্রতিদিন

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!