শরণার্থী ও ফিলিস্তিন সংকটকে কেন্দ্র করে যাইন টেলিকমের টিভি বিজ্ঞাপন

কুয়েতি টেলিকম কোম্পানী যাইন টেলিকমের ২০১৮ সালের রমজান বিজ্ঞাপনটি তাদের ব্যতিক্রমধর্মী উপস্থাপনার জন্য বহুলভাবে আলোচিত হয়েছে। ইতোঃমধ্যেই বিজ্ঞাপনটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে এবং আরববিশ্বের বাহিরের বিভিন্ন দেশে এটি ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের শরণার্থী সংকট এবং সাম্প্রতিক ফিলিস্তিন সংকটকে চিত্রিত করে বিজ্ঞাপনটি নির্মাণ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপনচিত্রের শুরুতেই দেখা যায় একজন শরণার্থী বালক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়ে তার বাড়ীতে ইফতারির দাওয়াত প্রদান করছে। তবে সেই বাড়িটি যদি ধ্বংসস্তুপের মধ্য থেকে তিনি যদি কষ্ট করে খুঁজে নিতে পারেন, তবে তিনি দাওয়াতে আসতে পারেন ছেলেটি জানায়।

পরবর্তী দৃশ্য সমূহে একে একে বিভিন্ন বিশ্বনেতাকে একের পর এক দৃশ্যপটে আসতে দেখা যায়। রাশিয়ার প্রেসিডেন্টভ্লাদিমির পুতিনকে দেখা যায় ছেলেটির পরিবারের সাথে খাবার গ্রহণ করতে দেখা যায়। এখানে তার পরিবারের একজন সদস্যকে হুইলচেয়ারে বসে থাকতে দেখা যায় (সম্ভবত তার পিতা), যিনি হয়তো কোন দুর্ঘটনায় চলাচলের শক্তি হারিয়েছেন।

এরপর বালকটিকে ইউরোপের সমুদ্র সৈকতে বসে থাকতে দেখা যায়। বালকটির পাশে দাড়ানো জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলকে বিভিন্ন দেশ থেকে শরণার্থীদের আগমনের দৃশ্য প্রত্যক্ষ করতে দেখা যায়।

পরবর্তীতে উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনকে দেখা যায় ছেলেটির বেডরুমে প্রবেশ করতে এবং এর পরমুহুর্তেই দেখা যায় তার কক্ষটি সুন্দর সাজানো অবস্থা থেকে ধ্বংসস্তুপে পরিণত হতে। কিছুক্ষণ পর ছেলেটিকে মিয়ানমার সীমান্তে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাথে হাটতে দেখা যায় যারা মিয়ানমার সেনাবাহিনীর  সহিংসতার শিকার হয়ে নিজ আবাসস্থল ছেড়ে পালাতে বাধ্য হয়েছে। এসময় তার সাথে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতরেসকেও হাঁটতে দেখা যায়।

শেষ দৃশ্যে ছেলেটিকে দেখা যায় কারাগার থেকে একটি মেয়েকে বের করে আনতে যে দেখতে অনেকাংশে আহাদ তামিমির মত, ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ যাকে সম্প্রতি ইসরাইলি সৈন্যকে আঘাত করার জন্য আট মাসের কারাদন্ড প্রদান করেছে। পরের দৃশ্যেই আল-আকসা মসজিদের দিকে পাশাপাশি হাত ধরাধরি করে তাদেরকে হেঁটে যেতে দেখা যায়। তাদের পাশাপাশি ছয়জন লোককেও ঐতিহ্যবাহী আরব পোশাক পরে তাদের সাথে আল-আকসার দিকে হাঁটতে দেখা যায়। ছয়জন দ্বারা এখানে মূলত জিসিসি’র ছয় রাষ্ট্রের ছয় নেতাকে প্রতিনিধিত্ব করা হয়েছে। ‘আমাদের ইফতার হবে ফিলিস্তিনের রাজধানী জেরুসালেমে’ গাওয়ার মাধ্যমে বিজ্ঞাপনচিত্রটি শেষ হয়।

কুয়েতি স্টুডিও জয় প্রোডাকশন (Joy Productions) এর তত্ত্বাবধানে এই বিজ্ঞাপনচিত্রটি নির্মিত হয়। গতবছর একই প্রতিষ্ঠানের তত্ত্বাবধানে যাইন টেলিকমের রমজান বিজ্ঞাপনটি নির্মিত হয় যেখানে আত্মঘাতী বোমা হামলা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমকে ভিত্তি করে বিজ্ঞাপনচিত্রটি তৈরি করা হয়। ঐ বিজ্ঞাপনচিত্রটি মুহূর্তেই আরব বিশ্বে জনপ্রিয় হয়েছিল এবং এটি ইউটিউবে তেরো মিলিয়ন বার দেখা হয়।

এ বছরের বিজ্ঞাপনটি প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথে প্রথমদিনেই এক মিলিয়ন বার ইউটিউবে দেখা হয়।

দ্যা নেশন অবলম্বনে, মুহাম্মদ আল-বাহলুল

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!