যুক্তফ্রন্টকে দুই অাসনে ছাড়, তৃণমূলে বিরূপ প্রতিক্রিয়া

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মহাজোটের শরিক দল হয়ে যুক্তফ্রন্ট তথা বিকল্পধারা ভোটের মাঠে নামবে। তবে আসন বণ্টন নিয়ে শুরুতেই ক্ষমতাসীনদের সঙ্গে টানাপোড়েন তৈরি হয়েছে বিকল্পধারার। প্রাথমিকভাবে বি চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টের জন্য ১০টি আসন চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু শুরুতেই তা নাকচ হয়ে যায়। পরে বিকল্পধারার মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান ও প্রেসিডিয়াম সদস্য মাহি বি. চৌধুরী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে দেখা করে অন্তত ৫ আসনের দাবি জানিয়ে যান। তবে শেষপর্যন্ত মহাজোট থেকে বিকল্পধারা বা যুক্তফ্রন্টকে দুই আসন ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগে মনোনয়ন প্রক্রিয়ায় সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, মুন্সীগঞ্জ-১ (সিরাজদিখান ও শ্রীনগর) ও নোয়াখালী-৪ (সদর ও সুবর্ণচর) আসন যুক্তফ্রন্টকে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। মুন্সীগঞ্জ-১ আসনে বিকল্পধারার সভাপতি ও যুক্তফ্রন্টের আহ্বায়ক বি চৌধুরী চাইলে নিজেই প্রার্থী হতে পারেন কিংবা তার পরিবর্তে ছেলে মাহি বি. চৌধুরীকে প্রার্থী হিসেবে বেছে নিতে পারেন। নোয়াখালী-৪ আসনে দলের মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নানকে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে।

অবশ্য বিকল্পধারার আলোচিত দুই নেতার মহাজোটের প্রার্থিতাও চ্যলেঞ্জের মুখে পড়ে গেছে। এ নিয়ে মুন্সীগঞ্জ ও নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। তারা বহিরাগত কাউকে মেনে নিতে রাজি নন।

মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের বর্তমান এমপি আওয়ামী লীগের সুকুমার রঞ্জন ঘোষ। তার পাশাপাশি এ আসনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম সারোয়ার কবিরের শক্ত অবস্থান রয়েছে। দলীয় জরিপে মুন্সীগঞ্জ-১ আসনটিতে আওয়ামী লীগ জয়ী হবে বলে উল্লেখ থাকায় এ আসনটি হাতছাড়া করতে রাজি হচ্ছেন না দলটির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির একাধিক সদস্য। তারা বলছেন, বিকল্পধারা পাশের আসন মু্ন্সীগঞ্জ-৩ (সদর ও গজারিয়া) তে ছাড় দিতে বলছেন। তবে শেষ পর্যন্ত এ আসনে মাহি বি. চৌধুরীর মহাজোটের মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কুলা প্রতীকে নির্বাচনে লড়বে বিকল্পধারা।

নোয়াখালী-৪ আসনের এমপি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী । জেলা কমিটিতে তার ব্যাপক প্রভাব থাকায় আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা তার নেতৃত্বেেই একাট্টা। তাকে মনোনয়ন না দেওয়া হলে জেলার অন্য আসনগুলো বিরূপ প্রভাব পারে। এ অবস্থায় ওবায়দুল কাদের লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে মেজর (অব.) আবদুল মান্নানকে মহাজোটের মনোনয়ন দেওয়ার সম্ভাবনার কথা স্থানীয় নেতাদের জানিয়েছেন বলে জানা গেছে। এ আসনের বর্তমান এমপি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আওয়ামী লীগের।

যুক্তফ্রন্ট অবশ্য এখনও তাদের জন্য ৫ আসনের দাবিতে অনড় রয়েছে।এর মধ্যে মুন্সীগঞ্জ-১ আসনটি সহ মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনও তারা নিজেদের দখলে রাখতে চায়। এক্ষেত্রে তাদের পরিকল্পনা হলো মুন্সীগঞ্জ-৩ (সদর ও গজারিয়া) আসন থেকে প্রার্থী হবেন বি চৌধুরী নিজেই আর বিকল্প ধারার যুগ্ম মহাসচিব ও বি চৌধুরীর ছেলে মাহি বি চৌধুরী মুন্সীগঞ্জ-১ থেকে নির্বাচন করবেন। দলের মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নানও নোয়াখালী-৪ আসনের পরিবর্তে অন্য আসনে নির্বাচনে আগ্রহী নন বলে জানিয়েছেন।

উল্লেখিত তিনটি আসন ছাড়াও বিকল্পধারার সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শমসের মবিন চৌধুরীকে সিলেট-৬ আসন থেকে এবং প্রেডিডিয়াম সদস্য গোলাম সারোয়ার মিলনকে মানিকগঞ্জ-২ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নের জন্য যুক্তফ্রন্ট জোড়ালো দাবি তুলেছে। তবে সেই টিকিট পাওয়ার সম্ভাবনা তাদের খুবই কম। দুই আসনেই বি চৌধুরীর দলকে সন্তুষ্ট থাকতে হবে বলে মনে করছেন ক্ষমতাসীন দলের নেতারা।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!