মাদকাসক্ত হেলপারের ট্রাকচাপায় স্কুলছাত্রী নিহত

টাঙ্গাইলের সখীপুরে মাদকাসক্ত হেলপারের ট্রাক চাপায় প্রাণ গেলো সাদিয়া আক্তার নামের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর। আজ শুক্রবার সকাল ১০ টার দিকে সখীপুর-সাগরদিঘী সড়কের বেলতলী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত সাদিয়া উপজেলার বড়চওনা উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রী এবং ওই এলাকর ব্যবসায়ী আজহারুল ইসলামের মেয়ে। ঘটনার পরপরই স্থানীয় শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। তারা সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত সখীপুর-সাগরদিঘী সড়ক অবরোধ করে রাখে। স্থানীয়রা ট্রাকের চালকের আসনে থাকা হেলপার তানভীরকে (১৫) আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে। ট্রাকের মালিক আবদুর রাজ্জাক বিপ্লব পলাতক রয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সকালে সাদিয়া আক্তার খালার বাড়ি থেকে পায়ে হেঁটে বাড়িতে আসার সময় ঢাকা-সখীপুর-সাগরদিঘী সড়কের বেলতলী এলাকায় বেপরোয়া গতিতে আসা একটি ট্রাক তাকে ধাক্কা দেয়। এতে মাথায় আঘাত লেগে গুরুতর আহত হয় সে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে দুপুর ১২ টার দিকে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সাদিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। সাদিয়ার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ সহপাঠীসহ স্থানীয়রা ‘নিরাপদ সড়ক চাই, দুর্ঘটনার বিচার চাই’সহ নানা স্লোগান দিয়ে সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। পরে বিকেল ৩টায় সখীপুর থানার ওসি এসএম তুহীন আলী ঘনাস্থলে গিয়ে বিচারের আশ্বাস দিলে তারা অবরোধ তুলে নেয়া হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ট্রাকের হেলপার আটককৃত তানভীর (১৫) এলাকায় মাদকাসক্ত হিসেবে পরিচিত। সে দেড়মাস আগে ওই ট্রাকের হেলপার হিসেবে যোগ দিয়েছিল। গাড়ি ধোয়ার জন্য চালক তাকে ট্রাকের চাবি দিয়েছিল।
ওই এলাকার বাসিন্দা ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ছবুর রেজা বলেন, অপরিণত হেলপারের হাতে যে এই ট্রাক তুলে দিয়েছে, আমরা সেই ট্রাক মালিকসহ সংশ্লিষ্টদের বিচারের আওতায় আনার জোর দাবি জানাচ্ছি।
বড়চওনা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লাল মিয়া বলেন, সাদিয়া আমাদের স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগের একজন মেধাবী ছাত্রী ছিল। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।

সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম তুহীন আলী বলেন, ঘাতক ট্রাকসহ হেলপারকে আটক করা হয়েছে। ট্রাকের মালিককে আটকের চেষ্টা চলছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানিয়েছেন এ কর্মকর্তা।

সূত্রঃ মানব জমিন

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!