ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। সাক্ষ্যগ্রহণের দিনে আদলতে হাজির না হওয়ায় এই আদেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬ এর বিচারক কে এম ইমরুল কায়েস এই আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানায়, সোমবার মামলাটি সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ধার্য ছিল। কিন্তু এ দিন রফিকুল ইসলাম মিয়া অসুস্থতার কারণে আদালতে হাজির হতে না পারায় আদালত এই আদেশ দেন। এ দিন মামলার চার সাক্ষী দুর্নীতি দমশ কমিশনের (দুদক) পরিচালক অবসরপ্রাপ্ত আবু তোরাব, দুদক পরিচালক শিরীন পারভীন, উপ-পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী, অবসরপ্রাপ্ত দুদক কর্মকর্তা সৈয়দ লিয়াকত হোসেন সাক্ষ্য দেন।

প্রসঙ্গত, জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০১ সালে ৭ এপ্রিল তার বিরুদ্ধে নোটিশ জারি করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের নোটিশ ওই বছরের জুনের ১০ তারিখে রফিকুল ইসলাম মিয়া গ্রহণ করলেও কোনো জবাব দেননি। পরে ২০০৪ সালের ১৫ জানুয়ারি তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে দুদক। পরে ২০১৪ সালের ১৫ জানুয়ারি দুদক কর্মকর্তা সৈয়দ লিয়াকত হোসেন ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়-বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ এনে উত্তরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

বিরোধী নেতাদের কারাগারে রেখে কোনো নির্বাচন হবে না: মির্জা ফখরুল
‘ আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়া সপ্তাহে ৫ কর্মদিবসের মধ্যে ৩ দিন কোর্টে যাবেন। আর প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টারে করে নৌকার পক্ষে ভোট চেয়ে বেড়াবেন। এটা সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন হতে পারে না’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিচতলায় শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মহিলা দল আয়োজিত এক ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। পরে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মহিলা দলের পক্ষে দুস্থদের মাঝে ত্রাণ বিরতণ করেন।

বিএনপির মহাসচিব ‘আমরা বারবার বলছি, একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হতে হবে, বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের কারাগারে রেখে এদেশে কোনো নির্বাচন হবে না, সকলকে সমান সুযোগ দিতে হবে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। সুতরাং আমাদের খুব পরিস্কার কথা, বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে এবং তাদের কারাগারে রেখে এখানে কোনো নির্বাচন হবে না। এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে এবং জনগণ যাতে ভোট দিতে পারে সেই ব্যবস্থা করতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রত্যেকটি জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। চালের দাম ৬০ টাকা, এই অবস্থায় সাধারণ মানুষের জীবন অত্যন্ত দুঃসহ হয়ে উঠেছে। সরকার সর্বক্ষেত্রেই ব্যর্থ হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, সরকারের এই উন্নয়ন শুধু একটি গোষ্ঠীর জন্য। যারা ধনী তারা আরো ধনী হয় এবং যারা গরীব তারা আরো গরীব হয়। আর এমন উন্নয়ন হচ্ছে যে, ঢাকার শহরে আর গাড়ি চলে না। আমরা দ্রুত এই অবস্থায় নিরসন চাই, দ্রুত একটি নির্বাচন হতে হবে। অবশ্যই সেই নির্বাচন নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে হতে হবে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আজকে আমাদের সকলকে জেগে উঠতে হবে এবং সজাগ হতে হবে। যে গণতন্ত্র হারিয়ে গেছে এবং যে অধিকার আমাদের কাছ থেকে নিয়ে গেছে, সেগুলো ফিরিয়ে আনতে হবে।

ম‌হিলা দ‌লের প্রশংসা ক‌রে বিএনপি মহাসচিব ব‌লেন, ‘প্র‌তি‌টি ক্ষে‌ত্রে ম‌হিলা দল এ‌গি‌য়ে চল‌ছে। ম‌হিলা দলই এক মাত্র সংগঠন যে তারা শত প্র‌তিকুলতার মা‌ঝেও প্র‌তি‌টি সাংগঠ‌নিক জেলা সফর করে কাউ‌ন্সিল কর‌তে পা‌রছে। এমন‌কি ঢাকায় যে সমস্ত কর্মসূ‌চি পা‌লিত হয় তা‌তেও এগিয়ে ম‌হিলা দল।’

আয়োজক জাতীয়তাবাদী মহিলা দল সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, মহিলা নেত্রী হেলেন জেরিন খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরটিএনএন

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!