বিউটি হত্যায় প্রধান আসামি বাবুল গ্রেপ্তার 

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জের আলোচিত বিউটি আক্তার হত্যার প্রধান আসামি বাবুল মিয়াকে অবশেষে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯। গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় তাঁকে সিলেটের বিয়ানীবাজার থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। র‍্যাব-৯–এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন প্রথম আলোকে।
র‍্যাব-৯ সূত্রে জানা গেছে, লে. কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদের নেতৃত্বে একটি দল গতকাল রাত সাড়ে ১২টার দিকে বিয়ানীবাজারে অভিযান চালায়। র‍্যাব সূত্র জানায়, বাবুল (৩৫) বিয়ানীবাজারে তাঁর ফুফুর বাড়িতে আত্মগোপন করে ছিলেন। সেখান থেকে তাঁরা তাঁকে গ্রেপ্তার করেছেন।
হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ থানার ব্রাহ্মণডোরা গ্রামের সায়েদ আলীর মেয়ে বিউটি আক্তার গত ২১ জানুয়ারি অপহরণ ও ধর্ষণের শিকার হন। তাঁর প্রতিবেশী বাবুল মিয়ার বিরুদ্ধে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় বিউটির বাবা ৪ মার্চ হবিগঞ্জ আদালতে বাবুল মিয়া ও তাঁর মা একই ইউনিয়নের নারী সদস্য কলম চান বিবিকে আসামি করে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন । এ মামলার পর থেকে আসামিরা মামলা প্রত্যাহারের জন্য ওই পরিবারটিকে নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। এর ফলে বিউটি আক্তারের পরিবার মেয়ের নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় নিয়ে ১৩ মার্চ বিউটিকে তাঁর নানার বাড়ি হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার গনিপুর গ্রামে পাঠিয়ে দেয়। ১৭ মার্চ দুপুর ১২টায় শায়েস্তাগঞ্জ থানার ছাতাগর্ত হাওরে বিউটির মরদেহ পাওয়া যায়। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁর বাবা সায়েদ আলী মেয়ের লাশ শনাক্ত করেন। এ ঘটনায় ১৮ মার্চ বিউটি আক্তারের বাবা বাবুল মিয়া ও তাঁর মা নারী ইউপি সদস্য কলম চান বিবিসহ ছয়জনের নামে ও অজ্ঞাত আরও পাঁচ থেকে ছয়জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় কলম চান গ্রেপ্তার হলেও মূল আসামি বাবুল পলাতক ছিলেন।প্রথম আলো

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!