‘বাংলাদেশ প্রতিদিন’ পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদকে মিথ্যাচার বলে প্রতিবাদ জানিয়েছে হেফাজত

 গতকাল (৯ মে) বুধবার “বাংলাদেশ প্রতিদিন” পত্রিকায় দেশের ঐতিহ্যবাহী বৃহত্তম দীনি বিদ্যাপীঠ আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম হাটহাজারীর আভ্যন্তরীণ বিষয় এবং হেফাজতে ইসলামকে নিয়ে যে সংবাদ প্রচারিত হয়েছে, সেটাকে উদ্ভট নির্জলা মিথ্যাচার আখ্যায়িত করে, এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়য়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশেরর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী।

গতকাল বিকেলে সংবাদপত্রে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, দারুল উলুম হাটহাজারী দেশের কওমী মাদরাসা সমূহের উম্মুল মাদারিস। এই মাদরাসার লেখা পড়ার উন্নতি ও অগ্রগতির দিকে লক্ষ্য করে মাদরাসার মহাপরিচালক শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী নানুপুর মাদরাসা থেকে আল্লামা শেখ আহমদ সাহেবকে মুহাদ্দিস হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। আল্লামা বাবুনগরীর বিকল্প কাউকে করার পরিকল্পনাও নেই। মাদরাসার ভাল-মন্দ দেখার দায়িত্ব মহাপরিচালক হিসেবে হুজুরের। হযরতের সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত মাদরাসার জন্যে কল্যাণকর। মাদরাসার যে কোন বিষয়ে কথা বলার এখতেয়া শুধুই কর্তৃপক্ষের। প্রাতিষ্ঠানিক দায়িত্বশীল ছাড়া নাম প্রকাশ না করে মিডিয়াকে ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত সৃষ্টি করা এবং অনধিকার চর্চা করা উচিৎ নয়।

মাওলানা আজিজুল হক ইলামাবাদী আরো বলেন, হেফাজতে ইসলাম দেশের সর্ববৃহৎ অরাজনৈতিক সংগঠন। হেফাজতের নেতৃত্ব নিয়ে কোন মতবিরোধ নেই। আমিরে হেফাজত ও মহাসচিব মহোদয়ের ঐকমত্যের ভিত্তিতে সংগঠনের কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হয়। হেফাজতের মজলিসে শূরার সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে কমিটি গঠন ও সদস্য নির্বাচন করা হয়, কারো একক ক্ষমতায় কিছু হয় না। সুতরাং বাংলাদেশ প্রতিদিন ও সুপ্রভাত বাংলাদেশ পত্রিকা দু’টির রিপোর্ট সম্পূর্ণ মিথ্যা, উদ্ভট, ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিকর। তাছাড়াও হেফাজতের একাংশের নেতৃত্ব আনাস মাদানী দিচ্ছেন উল্লেখ করে রিপোর্টে যে হ য ব র ল তা সৃষ্টি করার পায়তারা বাংলাদেশ প্রতিদিন ও সুপ্রভাত পত্রিকা শুরু করেছে, তা রীতিমতো লজ্জাজনক।

তিনি বলেন, আসল কথা হলো- হেফাজতে এ দল-ওদল বলতে কিছুই নেই। সকলেই একটি প্রাসাদের ন্যায় ঐক্যবদ্ধ। চিহ্নিত একটি মহল এসব ঘৃণ্য চক্রান্ত চালিয়ে যাচ্ছে তা সবার জানা। এই মহলটি আমীরে হেফাজত ও মহাসচিব এবং হাটহাজারী মাদরাসার সম্মানিত উস্তাদগণের মাঝে দ্বন্দ্ব লাগিয়ে মাদরাসার সুষ্ঠু পরিবেশকে বিনষ্ট করার এক গভীর চক্রান্তে মেতে উঠেছে।

মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী আরো বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে, হেফাজতের আন্দোলনে আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী মজলুম। তিনি গ্রেফতার হয়ে, রিমান্ডে নির্যাতন ভোগ করেছেন। মহাসচিব হিসেবে তিনি হেফাজতের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। বিভিন্ন ইস্যুতে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন চলছে। সারা দেশের হেফাজত নেতাকর্মী ও আলেমসমাজ আল্লামা শাহ আহমদ শফী ও আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। এটা অনেকের সহ্য হচ্ছে না। তাই তিলকে তাল বানিয়ে আকাশ থেকে তাল ফেলার অপচক্রান্ত দীর্ঘদিনের। হেফাজত বাংলাদেশে নাস্তিক মুরতাদ ও বাতিলের ভীত নাড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়েছিলো বিধায় কিছু কুচক্রীমহল আর বাম মিডিয়া মহাসচিবের সাথে আমীরে মুহাতারামের বিরোধ তৈরী করে হেফাজতের মধ্যে ভাঙ্গন সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার জন্যে অনুরোধ করছি এবং এসব মিথ্যা সংবাদে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্যে সকলের প্রতি আহবান জানান। -বিজ্ঞপ্তি।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!