ফ্রান্সে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেছে বাংলাদেশী ফরিদ

আশির দশক থেকেই বাংলাদেশীরা এদেশে বসতি শুরু করেন । মূলত নব্বই দশকের পর থেকে সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে এবং ২০০০ সালের পর তা কয়েকগুণ বৃদ্ধি পায়। নির্দিষ্ট করে কোনো তথ্য জানা না থাকলেও ধারণা করা হয় বর্তমানে দেশটিতে 50 হাজারের অধিক প্রবাসী বাংলাদেশী বসবাস করছেন, যা দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে ।
তাদের মধ্যে কিছু বাংলাদেশী এদেশে এসেছেন পড়াশোনা করার জন্য । তারা পড়াশোনার পাশাপাশি কাজও করে দেশে রেমিট্যান্স পাঠাচ্ছেন । অংশীদার হচ্ছেন দেশের উন্নয়নের । এদের মধ্যে অন্যতম “ফরিদ মিয়া”
তিনি গত ১৭ই জানুয়ারি ২০২০ ইং ফ্রান্সের বিখ্যাত ইউনিভার্সিটি ISAE-SUPAERO এবং
University Paul Sabatie থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেন ।
তিনি নরসিংদী জেলার রায়পুরা থানার রাজপ্রসাদ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন । বাবার নাম “মরহুম মজনু মিয়া” ।
তিনি ২০১৩ইং সালে ফ্রান্সে আসেন ল্যাবেক্স এক্সসিলেন্স স্কলারশীপের মাধ্যমে এম এস সি ইঞ্জিনিয়ারিং করার জন্য। ইউনিভার্সিটি গ্রেনোবল এ এক বৎসর এম এস সি ইঞ্জিনিয়ারিং করে প্যারিস এ Arts et Métiers ParisTech এ মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ রিসার্চ সম্পূর্ণ করেন ।
পরবর্তীতে ফ্রান্স সরকারের ওয়ান অফ দি মোস্ট প্রেস্টিজিয়াস স্কুলারশীপ – ফ্রেঞ্চ মিনিস্ট্রিয়াল পিএইচডি স্কুলারশীপ লাভ করেন ফ্রান্সের অন্যতম সেরা এরোনটিক্যাল ইঞ্জিনিরিং স্কুল(SUPAERO – École nationale supérieure de l’aéronautique et de l’espace ® (“SUPAERO”, “National Higher School of Aeronautics and Space”) তার PhD রিসার্চ সম্পূর্ণ করেন।

তিনি প্যারিস টেক থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে কৃতিত্বের সাথে মাস্টার্স ডিগ্রী সম্পূর্ণ করেন ।

তার পিএইচডি রিসার্চের বিষয় ছিল “Numerical and Experimental Analysis of CFRP Machining Process in Orthogonal Cutting”.
এছাড়াও তিনি “এরোনটিক্যাল স্ট্রাকচার ম্যানুফ্যাকচারিং” ও অ্যাসেম্বলি করার সময় ম্যাশিনিং জনিত কারণে স্ট্রাকচার এ যে সব ডিফেক্টস তৈরি হয় সেগুলো ম্যাথমেটিক্যালি এনালাইসিস করা
এবং ওই ডিফেক্টস যেন উৎপন্ন না হয় তার সমাধান খুঁজে বের করার রিসার্চের দায়িত্বে ছিলেন ।

গবেষণাগারে ফরিদ মিয়া
পিএইচডি তে ফ্রান্সের মিনিস্টারিয়াল পিএইচডি স্কলারশিপ অর্জন করেন ।
বর্তমানে “ফরিদ মিয়া” ফ্রান্সের তুলুসে বিমানের বডির ওজন কমানোর রিসার্চ প্রজেক্টে যুক্ত আছেন ।

তিনি প্রতিবেদককে বলেন – আমি স্বপ্ন দেখি ভবিষ্যতে বাংলাদেশের জন্য কিছু করার। তবে এইমুহূর্তে বিমানের বডির ওজন কমানোর রিসার্চ প্রজেক্ট এ জড়াতে যাচ্ছি।

এদিকে ফরিদ মিয়ার ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করার খবর পেয়ে ফ্রান্সে বাংলাদেশ কমিউনিটি অত্যন্ত আনন্দিত । কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ মনে করেন – এই ডক্টরেট ডিগ্রি ফরিদ মিয়ার একা অর্জন নয় , এটা ফ্রান্সে বাংলাদেশীদের অর্জন । তিনি ফ্রান্সে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করেছেন ।

গৌরবউজ্জল সফলতার জন্য – “ফরিদ মিয়াকে” ফ্রান্স প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটির নেত্রীবৃন্দ ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান ।সূত্র : ফ্রান্সবাংলা

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!