ফ্রান্সের মিউনিসিপ্যাল নির্বাচনে ১৪ জন বাংলাদেশীর মধ্যে শারমীন চূড়ান্তভাবে কাউন্সিলর নির্বাচিত ।

ফ্রান্সের স্থানীয় সরকার মিউনিসিপ্যাল নির্বাচনে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ১৪ জন ফ্রান্কো – বাংলাদেশী নাগরিক অংশ নেন তার মধ্যে এক মাত্র শারমীন হক চূড়ান্তভাবে Mairie de Pierrefitte থেকে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। উল্লেখ্য যে তিনি এর আগেও কাউন্সিলর হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১৪ সালে সোসালিষ্ট পার্টি থেকে Mayor Michel forcade (মেয়র মিশেল ফরকেদ)-এর প্যানেলে ২৭ জন কাউন্সিলর নির্বাচিত হয় ,পরবর্তীতে সেই ২৭ জন থেকে একজনের মৃত্যু হলে ‘শুন্য পদে’ নির্বাচিত হন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শারমিন হক।
এবার সরাসরি প্যানেল থেকে নির্বাচিত হয়েছেন! একজন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ফরাসী হিসেবে তিনি মূলধারার রাজনীতিতে সাফল্যের স্বাক্ষর রাখলেন। পরবর্তী প্রজন্মের কাছে তার নাম ‘অনুপ্রেরণার অংশ’ হয়ে থাকবে।
এই প্রথম উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী – ফরাসি মূলধারার নির্বাচনে অংশ নেন , অনেকের মেয়র প্রার্থীর (প্যানেল ) কাঙ্খিত ভোট না পাওয়াতে প্রথম ট্যুরে নির্বাচনী মাঠ থেকে ছিটকে পড়েন ।শারমিন ছাড়া আরও তিন জন ফ্রান্কো -বাংলাদেশীর প্যানেল বিজয়ী হয়েছে। তবে তাদের নাম এখনো বিজয়ী হিসেবে ঘোষিত হয়নি ।তারা হলেন সরুফ ছদিওল, মোঃ রেজাউল করিম ও রাব্বানী খাঁন ।
জয় – পরাজয় যাই হোক না কেন , ফরাসী মূলধারার রাজনীতিতে বাংলাদেশীদের পদচারণা শুরু হয়েছে এটি অব্যাহত থাকুক, ভবিষ্যতে এই বিজয় আরো বিস্তার লাভ করবে এটাই সবাই আশা করছেন। সূত্র :এম ডি নূরের টাইমলাইন

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!