প্যারিসে মুজিবনগর দিবসে বক্তারা :মুজিবনগর সরকার বাংলাদেশের প্রথম সরকার

মুজিবনগর দিবসের আলোচনায় বক্তব্য দেন কাজী ইমতিয়াজ হোসেন

মুজিবনগর সরকার বাংলাদেশের প্রথম সরকার। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং নিরীহ ও নিরস্ত্র জনগোষ্ঠীর ওপর পাকিস্তানি হানাদার সেনাবাহিনীর পরিচালিত নৃশংসতা ও গণহত্যার বিরুদ্ধে মুজিবনগর সরকারই বিশ্ববাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ ও বিশ্বজনমত গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে মুজিবনগর দিবসের আলোচনায় বক্তারা এ কথা বলেন। তারা মুজিবনগর দিবসের প্রেক্ষাপট গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে সঠিক ইতিহাস জানা ও সে ইতিহাসকে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন।

ফ্রান্সে যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উদ্‌যাপিত হয়েছে। ১৭ এপ্রিল বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে দিবসটি পালন করা হয়। পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ এবং মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের রুহের মাগফিরাত ও দেশের সার্বিক উন্নতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর বাণী পাঠের পর প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।
উপস্থিতির একাংশউপস্থিতির একাংশ

আলোচনা অনুষ্ঠানে ফ্রান্সে নিয়োজিত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত কাজী ইমতিয়াজ হোসেন তাঁর বক্তব্যে সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। তিনি আরও স্মরণ করেন জাতীয় চার নেতা ও মুক্তিযুদ্ধের ত্রিশ লাখ শহীদদের কথা। তিনি বলেন, বাংলাদেশের মুক্তিসংগ্রামের প্রতিটি ক্ষেত্রেই বঙ্গবন্ধুর অবদান অনস্বীকার্য। তিনি স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে সমতা, সামাজিক ন্যায়বিচার ও মানবিক মর্যাদার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, বর্তমান সরকারের শাসনামলে আর্থসামাজিক উন্নয়ন তারই সফল প্রতিফলন।
অনুষ্ঠানে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সঙ্গে তাঁদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিশেষত জননিরাপত্তা, ব্যবসা-বাণিজ্য ইত্যাদি বিষয়ে বিস্তারিত মতবিনিময় করা হয়। রাষ্ট্রদূত দূতাবাসের পক্ষ হতে সকল ধরনের সহায়তার আশ্বাস দেন।

বিজ্ঞপ্তি à¦ªà§à¦°à¦¥à¦® আলো

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!