প্যারিসবন্ধু সবুজ ভাই :একজন পরোপকারী,স্পষ্ট ভাষী ও দেশপ্রেমিক মানুষের ইন্তেকালে প্যারিসে শোকের ছায়া

এম এ মান্নান আজাদ ,প্যারিস
সৈয়দ আবুল হোসাইন সবুজ ভাই দেশে ছুটিতে গিয়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে ইন্তেকাল করেছেন।মাসাধিককাল থেকে তিনি জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ছিলেন ! আমরা সবাই আশা করেছিলাম তিনি সেরে উঠবেন । কিন্তু গতকাল যখন জানতে পারলাম তিনি চিরদিনের জন্য এই নশ্বর পৃথিবী ছেড়ে আল্লাহর ডাকে সারা দিয়ে চলে গেছেন তখন আমি বিস্মিত হয়ে যাই । ফেসবুকে প্রকাশিত সংবাদ ভেরিফাই করে দেখলাম ঘটনা সত্য । পড়লাম “ইন্নালিল্লাহি বা ইন্না ইলাইহি রাজিউন” আমরা সবাই আল্লাহর আর আমাদেরকে আল্লাহর কাছে ফিরে যেতে হবে।
আজ থেকে ২১ বছর আগে আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে তার সাথে আমার প্রথম সাক্ষাৎ হয়। প্রথম সাক্ষাতেই তার সদা হাসিমাখা মুখ আর স্পষ্টবাদিতা আমাকে চুম্বকের মত আকৃষ্ট করে। আমার বেশ কিছু ডকুমেন্টস তাকে দিয়ে অনুবাদ করাই। ২০০২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে আমরা বাংলাসাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিষদের উদ্যোগে প্যারিসে ভাষা সেমিনার ও আলোচনা সভার আয়োজন কর। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাভাষার অন্যতম প্রধান কবি আলমাহমুদ।এউপলক্ষে আমার সম্পাদনায় প্যারিস
থেকে আমরা সারা বিশ্বের বিশিষ্ট কবি সাহিত্যিক ও সাংবাদিকদের লেখা সম্মৃদ্ধ “প্রবাস দিগন্ত” নামক একটি স্মরণিকা প্রকাশ করি। তখন আজকালকার মত মোবাইল আর অনলাইনে বাংলা লেখার কোন সুযোগ ছিলনা। প্যারিসে শুধু সবুজ ভাইয়ের কাছে বাংলা বিজয় কীবোর্ড ছিল। আমি সন্ধ্যা বেলা উনার মেরি দ্য লীলার বাসায় যেতাম আর রাত ১২ টার মেট্রো যোগে ফিরে আসতাম। আমি ডিক্টেট করতাম আর উনি কম্পোজ করতেন। অনুষ্ঠানের আগেরদিন সারারাত কাজকরে উনি ম্যাগাজিন কম্পোজ শেষ করে দেন আর আমি সকাল সাড়ে ৫ টার মেট্রো যোগে উনার বাসা থেকে ফিরে আসি। সারা রাত জেগে কষ্ট করেও মন খারাপ করেননি বরং বললেন একটা মহৎ উদ্যোগের সাথে শরিক হতে পেরে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি।
উনি একজন সৎ,পরোপকারী,স্পষ্ট ভাষী ও দেশপ্রেমিক মানুষছিলেন। উনি খুবই স্পষ্ট ভাষী ছিলেন “কোদালকে কুড়াল বলতে জানতেননা”। উনি অনুবাদের নামে “কপিপেস্ট” করা পছন্দ করতেননা। একজন বুইড়া অহংকারী অনুবাদক যিনি অন্যদেরকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করতেন আর নিজে নাম ঠিকানা পরিবর্তন করে সবাইকে একই কাহিনী প্রিন্ট করে দিতেন সবুজ ভাই তাঁর এই দুর্নীতি প্রচন্ডভাবে ঘৃণা করতেন।
তিনি তাঁর “ফ্রান্সে রাজনৈতিক আশ্রয় ও অভিবাসন” গ্রূপের মাধ্যমে নবীন-প্রবীণ সকলের জিজ্ঞাসার জবাব দিতেন সেই সাথে দালাল ,টাউট বাটপার ও সাংঘাদিকদের অপকর্মের বিরুদ্ধে সোচ্ছার ছিলেন। তিনি নাস্তিকতার নামে ইসলাম বিদ্ধেষের বিরুদ্ধেও সোচ্ছার ছিলেন।
আমাদের দেশের সরকারের মন্ত্রীরা প্রায়ই বলে থাকেন দেশ সিঙ্গাপুর হয়েগেছে। অথচ ডেঙ্গু আক্রান্ত সবুজ ভাইয়ের মৃত্যু জানান দিয়ে গেল আমাদের চিকিৎসা ব্যবস্থার বেহালদশা।
আল্লাহ তাঁর নেক কাজগুলি কবুল করুন, ভুলত্রুটি ক্ষমা করুন এবং জান্নাতে উচ্চ মাকাম দান করুন। আমিন।
এম এ মান্নান আজাদ ,প্যারিস

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!