ড: তারিক রামাদানের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণের কাছাকাছি এসে দাঁড়িয়েছে

অধ্যাপক ফরিদ আহমদ রেজা :জনপ্রিয় ইসলামী চিন্তাবিদ ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর তারিক রামাদান ধর্ষণের অভিযোগে অনেক দিন ‎থেকে আটক আছেন। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ এখনো আদালতে প্রমাণিত হয়নি। তবে নারীবাদী সালাফি লেখিকা হেন্দা ‎আয়ারি নামের এ নারীর আনীত ধর্ষণের অভিযোগ প্রায় মিথ্যা প্রমাণের কাছাকাছি এসে দাঁড়িয়েছে। অবশ্য আদালত ‎এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে তা খারিজ করে দেয়নি।

ফরাসি গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে ‘ইসলাম ২১ সি ডটকম’ নামের একটি গণমাধ্যম বলেছে, হেন্দা তার অভিযোগে যেদিন ‎ধর্ষণের কথা বলেছেন সেদিন তিনি তার ভাইয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে ছিলেন। এ ব্যাপারে তার ভাই সাক্ষ্য দিয়েছেন এবং ‎বিয়েতে যে ভিডিও করা হয়েছে, সেখান থেকে হেন্দার উপস্থিতির প্রমাণ আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে।

আয়ারি প্রথমে অভিযোগ করেন যে, ২০১২ সালে মার্চ মাসে তিনি প্যারিসের ক্রাউন প্লাজায় তারিক রামাদানের দ্বারা ‎নির্যাতিত হন। যদিও এ ধরনের অভিযোগ চ্যালেঞ্জ করেন রামাদান। কিন্তু পরবর্তীতে হেন্দা দাবি করেন, আসলে ওই ‎বছরের মে মাসে প্যারিসের একটি হোটেলে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

তবে এই মামলা এখন একটি বিশেষ দিকে মোড় নিয়েছে যখন হেন্দার অভিযোগ অনুযায়ী প্রমাণ হয়েছে যে, ২০১২ ‎সালের ২৬ মে তিনি তার ছোট ভাইয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে ছিলেন। এর ফলে সুইস নাগরিক ও বুদ্ধিজীবী রামাদানের ‎বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণ করা হেন্দার জন্য অত্যন্ত কষ্টের হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে, অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ার পরও ফরাসি আদালত রামাদানের জামিন মঞ্জুর করেনি বলে জানিয়েছে ‎মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক গণমাধ্যম খালিজ টাইমস।

তিন পৃষ্ঠার রায়ে আদালত বলেছে, তারিখ নিয়ে হেরফের হলেও মূল অভিযোগ এখনও প্রত্যাহার করেনি ‎অভিযোগকারী। তাছাড়া আরো এক নারী তার বিরুদ্ধে যে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছে সেটির কথাও উল্লেখ করেছে ‎আদালত।

এর বাইরে তৃতীয় এক ফরাসি নারী অভিযোগ করেন যে, ২০১৩ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত তারিক তাকে নয়বার ধর্ষণ ‎করেছেন। কিন্তু আদালত সে অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে।

উল্লেখ্য, তথাকথিত ওই ধর্ষণের অভিযোগে গত ফেব্রুয়ারি মাস থেকে ফ্রান্সের কারাগারে রয়েছেন ৩০টির বেশি সাড়া ‎জাগানো বই ও সাত শতাধিক প্রবন্ধের লেখক তারিক রামাদান। ফরাসি আইন অনুযায়ী তার জামিন পাওয়ার অধিকার ‎থাকলেও তাকে জামিন দেওয়া হচ্ছে না। এমনকি পরিবারের লোকজনকেও তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে দেওয়া হয়নি ‎বলে অভিযোগ রয়েছে।

https://www.islam21c.com/…/breaking-tariq-ramadans-accuser…/

Image may contain: 1 person, smiling, closeup

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!