ট্রাম্প-মেলানিয়ার কাছে সৌদি সাংবাদিকের বাগদত্তার আবেদন

এএফপি, ওয়াশিংটন

• তুরস্কে সৌদি কনস্যুলেটে ঢুকে নিখোঁজ সাংবাদিক জামাল খাসগির
• ট্রাম্প ও মেলানিয়ার কাছে সহায়তা চেয়েছেন সাংবাদিকের বাগদত্তা

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের সহায়তা চেয়েছেন তুরস্কে সৌদি কনস্যুলেটে ঢুকে নিখোঁজ সাংবাদিক জামাল খাসগির বাগ্‌দত্তা হেদিসে সেনজিস। গতকাল বুধবার ওয়াশিংটন পোস্ট-এ এক আবেগঘন প্রবন্ধে তিনি এই আহ্বান জানান। জামাল এই পত্রিকার নিয়মিত কলাম লেখক।

জামাল খাসগির জন্য স্বজন–বন্ধুদের নিয়ে অপেক্ষায় আছেন তাঁর বাগদত্তা হেদিসে সেনজিস। এএফপিজামাল খাসগির জন্য স্বজন–বন্ধুদের নিয়ে অপেক্ষায় আছেন তাঁর বাগদত্তা হেদিসে সেনজিস। এএফপিহেদিসে লিখেছেন, ‘নিখোঁজ জামালের সন্ধানে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে আমি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের প্রতি করজোড়ে প্রার্থনা করছি। আমরা যখন বিয়ে করে নতুন জীবন শুরুর কথা ভাবছি, তখন হঠাৎ সে নিখোঁজ হয়ে গেল। জামাল একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি, আদর্শ চিন্তাবিদ ও সাহসী মানুষ, সে তার আদর্শের জন্য লড়ে যাচ্ছে। তাকে যদি তুরস্কে অপহরণ বা হত্যা করা হয়, আমি কীভাবে বেঁচে থাকব, তা ভাবতেও পারছি না।’ তবে তুরস্কের সরকারের সক্ষমতার প্রতি তাঁর আস্থা আছে বলেও জানান।

ওই লেখায় হেদিসে বলেন, ‘আমি সৌদি আরব, বিশেষ করে বাদশাহ সালমান ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের প্রতি জামালের নিখোঁজের ঘটনা গুরুত্ব দিয়ে দেখার অনুরোধ জানাচ্ছি এবং কনস্যুলেটের সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশের দাবি জানাচ্ছি।’ তাঁর বিশ্বাস, জামাল এখনো বেঁচে আছেন। তবে যত দিন যাচ্ছে, সে আশা ধূসর হয়ে আসছে।

তবে গত মঙ্গলবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সাংবাদিকদের বলেছেন, সৌদি সাংবাদিক নিখোঁজের ঘটনায় তিনি এখনো সৌদি আরবের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেননি। তিনি বলেন, ‘আমি এখনো কথা বলিনি। তবে কিছু বিষয়ে বলব। আমি এখনো কিছু জানি না। অন্যরা যেমন শুনেছে, আমিও ততটুকুই শুনেছি। এর বেশি কিছু নয়।’

জামাল নিখোঁজের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের তুলনায় কঠোর অবস্থান নিয়ে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, এ ঘটনার বিষয়ে গণমাধ্যমের প্রতিবেদনগুলো যদি ঠিক হয়, তাহলে যুক্তরাজ্য বিষয়টিকে খুবই গুরুত্বসহকারে দেখবে। ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট সৌদি আরবের কাছে নিখোঁজ সাংবাদিক জামাল খাসগির বিষয়ে দ্রুত উত্তর প্রত্যাশা করছেন বলে জানিয়েছেন। তিনি ফোনে সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল-জুবেরকে বলেছেন, একই ধরনের মূল্যবোধের ওপর বন্ধুত্ব নির্ভর করে। যুক্তরাজ্য সৌদি আরবকে বলেছে, জামাল খাসগির বেঁচে থাকার প্রমাণ সৌদি আরবকে দিতে হবে। তাঁকে টেলিভিশনে হাজির করার মাধ্যমে কাজটি সবচেয়ে ভালোভাবে করতে পারে সৌদি। তবে কাজটি যদি দ্রুত করা না হয়, তাহলে যুক্তরাজ্য ও তার মিত্রদের কাছে এটাই প্রতীয়মান হবে যে সৌদি আরব নিজেদের সীমা লঙ্ঘন করেছে।

২ অক্টোবর তুরস্কে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর থেকে নিখোঁজ আছেন সাংবাদিক জামাল খাসগি।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!