টরন্টোয় চালু হচ্ছে বাংলাদেশি কনসুলেট

টরন্টো শহর। সংগৃহীতটরন্টো শহর। সংগৃহীত

কানাডার ওন্টারিও প্রদেশ ও এর আশপাশ প্রদেশে বসবাসরত বাংলাদেশিদের সহজতর কনস্যুলার সেবা প্রদান করতে টরন্টো শহরে চালু হতে যাচ্ছে স্থায়ী কনস্যুলার সেবা। আগামী ১৭ ডিসেম্বর টরন্টোয় বাংলাদেশের কনসাল জেনারেলের কার্যালয়ের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে।

দেশটির ওন্টারিও, সাস্কাচেওয়ান, ব্রিটিশ কলম্বিয়া, আলবার্টা ও ম্যানিটোবায় বসবাসরত বাংলাদেশি অভিবাসী ও নাগরিকেরা কনস্যুলার সেবার আওতায় আসবেন বলে কনসাল জেনারেলের কার্যালয় থেকে প্রেরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

সেবা সম্পর্কে টরন্টোর বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল নাইম আহমেদ প্রথম আলোকে জানান, প্রাথমিকভাবে এ কনস্যুলেট থেকে ভ্রমণসংক্রান্ত কাগজপত্র, ভিসা, নো-ভিসা, সত্যায়িতকরণ, পাওয়ার অব অ্যাটর্নি, এনডোর্সমেন্ট ও অভিবাসন সংক্রান্ত পরামর্শ সেবা পাওয়া যাবে। এ ছাড়া, ঢাকার অভিবাসন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর এ কনস্যুলেটে যন্ত্রে পাঠযোগ্য পাসপোর্ট ও ভিসা এবং ই-পাসপোর্ট সেবা চালুর জন্যও কাজ শুরু করছে।

বর্তমান সরকারের সময়ে এটি হবে বিদেশে চালু হওয়া বালাদেশের অষ্টাদশ নতুন মিশন। বাংলাদেশ কনস্যুলেটের ঠিকানা: ১৫০৫-২২৩৫ শেফার্ড অ্যাভিনিউ ইস্ট, এট্রিয়া ২, টরন্টো, অন্টারিও এম২ জে৫ বি ৫, কানাডা। সুইচবোর্ড: +১-৬৪৭-৮১২-২৭৯১-২।

সপ্তাহের সোম থেকে শুক্রবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে কনসাল জেনারেলের কার্যালয়। তবে সেবা প্রদান করা হবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা ও দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। শনিবার ও রোববার সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়াও কানাডার সরকারি ছুটির দিনগুলোতে কনস্যুলেট বন্ধ থাকবে।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!