জাকির নায়েকের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ স্থগিত ট্রাইব্যুনালে

জাকির নায়েকের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ স্থগিত ট্রাইব্যুনালে

ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা অর্থ পাচার প্রতিরোধবিষয়ক কঠোর পিএমএলএ’র আওতায় গত বছরের মার্চে অর্থ পাচারের অভিযোগে চেন্নাইয়ের একটি স্কুল ভবন ও একটি গুদামঘর বাজেয়াপ্ত করতে চেয়েছে।

আইন অনুযায়ী, এ ধরনের ক্ষেত্রে নির্দেশটি চূড়ান্ত বাস্তবায়নের জন্য বাস্তবায়ন কর্তৃপক্ষের (এএ) কাছে যায়। সেখানেও বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ বহাল থাকলে ক্ষতিগ্রস্ত পক্ষ আপিল কর্তৃপক্ষের কাছে যেতে পারে।

আপিল কর্তৃপক্ষই আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়ে বলেছে, এ ব্যাপারে আরো কিছু যাচাই-বাছাইয়ের প্রয়োজন আছে।

তবে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা বলেছে, তারা বিষয়টি নিয়ে হাইকোর্টে যাবে।

কর্মকর্তারা বলেন, ট্রাইব্যুনাল স্থিতিবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

তবে ট্রাইব্যুনাল মামলার সাথে সম্পর্কিত জাকির নায়েকের অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার সুযোগ দিয়েছে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে। এর ফলে জাকির নায়েকের এনজিও ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনের (আইআরএফ) ৯.৪১ কোটি রুপি এবং পাঁচটি একাউন্টে থাকা ১.২৩ কোটি রুপি বাজেয়াপ্ত করা হতে পারে।
এজেন্সি সূত্র জানিয়েছে, এনআইএ’র থেকে আলাদাভাবে ইডি তদন্ত করেছে। তারা দেখেছে, জাকির নায়েক এবং তার সহযোগীরা কথিত ‘অসাধু তহবিল’ ব্যবহার করে এসব সম্পত্তি সংগ্রহ করেছেন।

ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (এনআইএ) ২০১৬ সালে ৫১ বছর বয়স্ক জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী প্রথম মামলাটি করেছিল। তিনি বিভিন্ন ধর্মীয় গ্রুপের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছেন বলে অভিযোগে বলা হয়।

এর পরপরই এনআইএ ও মুম্বাই পুলিশ ১০টি স্থানে তল্লাশি চালায়। যেসব স্থানে তল্লাশি চালানো হয়েছিল, তার মধ্যে ছিল জাকির নায়েকের প্রতিষ্ঠিত ফাউন্ডেশনের কোনো কোনো কর্মকর্তার বাসভবন।

এর আগে বিদেশী তহবিল সংগ্রহের ব্যাপারে ফাউন্ডেশনটির ওপর কড়াকড়ি আরোপ করেছিল ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

গত বছর ঢাকার গুলশানে হামলায় জড়িত তরুণরা তার বক্তব্যে অনুপ্রাণিত হয়েছিল বলে অভিযোগ পাওয়ার পর জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ আনা হতে থাকে। তিনি গ্রেফতার এড়াতে এখন সৌদি আরবে অবস্থান করছেন বলে শোনা যাচ্ছে। তার বিরুদ্ধে আরো কিছু অভিযোগও আনা হয়েছে।
সাউথ এশিয়ান মনিটর

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!