‘ছাত্রলীগের স্বভাব হিংস্র, নিষ্ঠুর এবং গুণ্ডার মত’- ড. জাফর ইকবাল!

কোটা সংস্কার আন্দোলনের কর্মিদের ওপর ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী আক্রমণের বিষয়ে ড. জাফর ইকবালের মতামত জানতে চেয়েছিলেন Prottoy Prokas নামে এক ছাত্র, তিনি ইমেইলের জবাবে উপরোক্ত মন্তব্য করেন। ইংরেজিতে লেখা তাঁর ইমেলে ছাত্রলীগের ব্যাপারে ব্যবহৃত শব্দ ছিল ‘thugsand goons’ যার বাংলা হচ্ছে খুনি বা দুর্বৃত্তবাহিনী এবং গুণ্ডা বাহিনী। দেখুন; (Prottoy Prokas, ফেইসবুক পোস্ট, ০৭ জুলাই ২০১৮,)

Prottoy Prokas এর ফেসবুক স্ট্যাটাসটি নীচে হুবুহু দেওয়া হলঃ

কোটা সংস্কার আন্দোলনে সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগের ন্যাক্কারজনক হামলার পর মুহম্মদ জাফর ইকবাল কাছে ২ জুলাই তার প্রতিক্রিয়া জানতে চেয়েছিলাম। লেখকের প্রতিক্রিয়ার কিছু অংশ বাংলায় তুলে ধরলাম:

তোমার মেইলের জন্য ধন্যবাদ। সাম্প্রতিক সময়ে আমি তোমার মেইলের ন্যায় একটি মেইল পেয়েছি। আমি এরকম বিপর্যয়কর পরিস্থিতি নিয়ে আমার প্রতিক্রিয়া তোমার কাছে ব্যক্ত করছি।

আমি জানতে পেরেছি, এই কোটা সংস্কার আন্দোলনে সমর্থকের পরিমাণ ২২ লক্ষাধিক। এই বিশাল পরিমাণ সমর্থন যে আন্দোলনে আছে, সেই আন্দোলনকারীরা নিশ্চয়ই অজেয় হবে, তারা সর্বত্র সমর্থন পাবে। তারা নিজেরাই নিজেদের রক্ষা করতে পারবে।

আমার প্রধানমন্ত্রীর উপর বিশ্বাস আছে। আমি মনে করি, কোটা সংস্কার যখন তিনি করবেন বলেছেন, তখন এই কোটা সংস্কার হবে। তুমিও তাকে বিশ্বাস করো, এবং অপেক্ষা করো।

আর ছাত্রলীগের ব্যাপারে- আমার এদের প্রতি বিন্দুমাত্র সম্মান নেই। আমাদের ক্যাম্পাসেও তারা শিক্ষকের উপর আক্রমণ করে। এদের স্বভাব হিংস্র, নিষ্ঠুর এবং গুণ্ডার মত। আমি জানতে পেরেছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি আরো খারাপ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই সমস্যা একটা জাতীয় সমস্যা। এর মধ্য দিয়ে তোমাকে টিকে থাকতে হবে। এই ছাত্রলীগ থেকে আমি তোমাকে নিরাপত্তা দিতে অক্ষম। কারণ এমনকি আমাদের মত শিক্ষকরাও এদের থেকে নিরাপদ নই।

আমাদের জন্মভূমিকে ভালোবাসার জন্য ধন্যবাদ এবং ভালো থেকো।

বিঃদ্রঃ ছাত্রলীগের এই ভয়াবহ হামলার পর কিভাবে কিভাবে যেন, মুহম্মদ জাফর ইকবালের নাম বারবার উঠে এসেছে। এই বার্তা আদানপ্রদান ছিল আমার আর লেখকের একান্ত বার্তা আদানপ্রদানের অংশ। আমি প্রয়োজন অনুভব করি নি, তা সবার সামনে প্রকাশ করার। কিন্তু যে ছাত্রলীগ এরকম হামলা চালালো, সেই ছাত্রলীগ সম্বন্ধে একজন অধ্যক্ষের মতামত না জানলে কোটা সংস্কার আন্দোলন সম্পুর্ণ পুর্ণতা পাচ্ছে না বলেই, ফেসবুক সেলেব্রিটি দের পোস্ট পরে অনুমেয় হয়েছে। এইকারণেই শিক্ষক এবং ছাত্রের মধ্যে আলাপের মধ্যকার ব্যক্তিগত অংশ বাদ দিয়ে, জাতীয় ইস্যুতে তার মতামত তুলে ধরলাম।

তবে সচেতন ছাত্র সমাজের পক্ষ থেকে কোটা সংস্কার ইস্যুর মত জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ এওং সংবেদনশীল ইস্যুতে জাফর ইকবালের মতমতের জন্য prottoy prokash নামক কোন এক ছাত্রের ব্যাক্তিগত ইমেইলের উপর ভরসা রাখতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!