চ্যাম্পিয়নের মতোই এগোচ্ছে ফ্রান্স

চ্যাম্পিয়নের মতোই এগোচ্ছে ফ্রান্স
অ- অ অ+

ফ্রান্সের এবারের পারফরম্যান্স ’৮২-র ইতালির সঙ্গে মেলানো যায়। ইতালিয়ানরা সেবার পোল্যান্ড, ক্যামেরুন ও পেরুর সঙ্গে তিনটি ম্যাচই ড্র করে গ্রুপের দ্বিতীয় সেরা দল হিসেবে ওঠে দ্বিতীয় রাউন্ডে। এবারের ফ্রান্স অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জিতেছে ভাগ্যের ছোঁয়ায়। পরের ম্যাচে পেরুর বিপক্ষে ন্যূনতম ব্যবধানে, আর ডেনমার্কের বিপক্ষে শেষ ম্যাচ তো ছিল গোলশূন্য।

তাতে ফরাসিদের ফেভারিট তকমা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছিল। নক আউটের প্রথম দুই ম্যাচে সেই সমালোচকদের মুখ বন্ধ করেছে দিদিয়ের দেশমের দল। ইতালি যেমন করেছিল সেবার আর্জেন্টিনা আর ব্রাজিলকে হারিয়ে। এবারের ফ্রান্স শেষ ষোলোতে তাদের সামর্থ্যের পূর্ণ ঝলক দেখিয়েছে সেই আর্জেন্টিনার বিপক্ষে। পরশু সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে উরুগুয়ের বাধার প্রাচীরও তারা টপকে গেছে। ’৯৮-এর ফ্রান্সকে নিয়েও দ্বিধা ছিল। শেষ ষোলোতে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে অতিরিক্ত সময়ের জয়, কোয়ার্টার ফাইনালে ইতালিকে টাইব্রেকারে হারানো দেখে বিশ্বাস করাটা কঠিন ছিল তারা চ্যাম্পিয়ন হবে। কিন্তু সেই দলটিই যে এই লড়াইগুলো পেরিয়ে শিরোপার জন্য ভেতরে ভেতরে তৈরি হয়ে গিয়েছিল, তা বোঝা গেছে পরে। যখন যেমনটা দরকার তেমনভাবেই তারা ম্যাচ জিতছিল, সেমিফাইনালে লিলিয়ান থুরাম তাঁর ক্যারিয়ারের প্রথম ও দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক গোল করে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে পার পাইয়ে দেন দলকে। এবারও আর্জেন্টিনার বিপক্ষে যখন প্রয়োজন তখন কিলিয়ান এমবাপ্পে নামে এক তরুণ তাঁর সব সম্ভাবনা নিয়ে পাখা মেলেন। উরুগুয়ের বিপক্ষে জিততে সেই এমবাপ্পেকেও আবার লাগেনি, সেট পিসে রাফায়েল ভারান পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন, উগো লরি করেছেন অনেক দিন মনে রাখার মতো এক সেভ। সামনে বেলজিয়াম এবং ফাইনাল। তখনো এই ফ্রান্স যে তাদের ভেতরের এমন অগুনতি সম্ভাবনা নিয়ে জ্বেলে উঠবে না কে বলতে পারে।

ম্যাচ শেষে দিদিয়ের দেশমকে প্রশ্ন করা হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সেই সম্ভাবনা নিয়ে। জবাবে দেশম দলের অগ্রগতির মতোই কোয়ার্টার ফাইনালের চেয়ে আগে বাড়েননি, ‘দেখা যাক কী হয়। এখন আমি শুধু এটুকু বলতে পারি যে যোগ্য দল হিসেবেই ফ্রান্স উঠে এসেছে শেষ চারে। আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ম্যাচেই আমরা নিজেদের আবিষ্কার করেছি, ওই ম্যাচে দেখিয়েছি যে আমরা পরিণতও। আজ ভালো খেললেও সব ঠিকঠাক হয়েছে এমনটা বলা যাবে না, আমাদের আরো উন্নতির সুযোগ আছে।’

দেশমের ’৯৮-এর সেই দলের মতোই হয়তো বা ধাপে ধাপে উন্নতি করে ফাইনালে পুরোপুরি উদ্ভাসিত হওয়ার অপেক্ষায় এই ফ্রান্স। ম্যাচ শেষে গ্রিয়েজমান বলেছেন সেই সাফল্যের পথে যেতে তাঁদের সামর্থ্যের জায়গাটা নিয়ে, ‘এটা ঠিক আমরা এখনো নিজস্ব একটা ধরন দাঁড় করাতে পারিনি। কিন্তু ম্যাচে কী হচ্ছে, হতে যাচ্ছে তার ওপর আমাদের একটা দখল আছে। এই দলে এমন খেলোয়াড় আছে যারা যেকোনো পরিস্থিতিতে খেলাটা নিয়ন্ত্রণ করতে পারে, জানে কোথায় থামতে হবে, দৌড়াতে হবে কখন।’

কোনো গোল না করেও দলে অপরিহার্য হয়ে গেছেন যেমন অলিভিয়ের জিরদ। পরশুর ম্যাচ শেষেও এই স্ট্রাইকারের প্রশংসা দেশমের মুখে, ‘তার খেলার ধরনের কারণেই সে আমাদের দলে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। আগের ম্যাচে সে এমবাপ্পেকে অ্যাসিস্ট করেছে। যখন যেভাবে প্রয়োজন নিজেকে বিলিয়ে দিচ্ছে। আমাদেরও প্রতি ম্যাচেই ওকে দরকার হচ্ছে।’ মিডফিল্ডে এনগোলো কান্তের পাশে তেমনই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছেন পল পগবা। পরশু উরুগুয়ে খেলোয়াড়দের সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে হলুদ কার্ড দেখার মতো পরিস্থিতি হয়ে গিয়েছিল প্রায়। আর তা হলে শেষ চারে তাঁকে পাওয়া হতো না দেশমের। সেসময় টাচলাইনে দেশমই তাঁকে শান্ত করেছিলেন বলে ম্যাচ শেষে দেশমের প্রতি কৃতজ্ঞতাও ঝরেছে তাঁর।

দেশম নিজে দাঁড়িয়ে এখন ব্যক্তিগত এক মাইলফলকের সামনে। খেলোয়াড় ও কোচ দুই ভূমিকাতেই বিশ্বকাপ জেতার বিরল সৌভাগ্যবান দুজন—মারিও জাগালো এবং ফ্রেঞ্জ বেকেনবাওয়ারের পাশে নাম লেখানোর সুযোগ তাঁর সামনে। অপেক্ষা আর মাত্র দুই ম্যাচের। ’৯৮-এর অধিনায়ক অবশ্য ব্যক্তিগত অর্জনের সেই হাতছানিতে মাতছেন না, দলকে নিয়েই তাঁর সব ভাবনা, ‘আর সবার মতো আমিও আমার লক্ষ্য পূরণ করতে চাই। কিন্তু এই মুহূর্তে আমার চাওয়া পুরোটাই আমার দলকে ঘিরে। এখানে আমি আমার নিজের জন্য কিছু করছি না, সব কিছুই দলের জন্য।’ এএফপি

খেলা- এর আরো খবর

ছবি কথা বলে৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
কথার খেলা৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
বিশ্বকাপ কর্নার৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
বিশ্বস্ত হাত৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
বুলেট শট৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
দিনটি ছিল বেলজিয়ামের৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
কাতার গেল ফুটবল দল৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
পিএসজিতে বুফন৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
খেলবেন উমতিতি৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
টিভিতে৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
ম্যাচের ফল৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
সর্বোচ্চ গোলদাতা৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০
ফাইনাল খেলা৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!