গ্রিস সীমান্তের কাছে ট্রাক থেকে ৬৪ বাংলাদেশি অভিবাসীকে আটক করেছে পুলিশ

মহামারী করোনা সংকটের মধ্যে গ্রিসের উত্তরের সীমান্তের কাছে একটি ট্রাকে গাদাগাদি করে থাকা ৬৪ বাংলাদেশি অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করেছে নর্থ মেসিডোনিয়ার পুলিশ । অভিবাসন প্রত্যাশী এই ব্যক্তিদের গ্রিস সীমান্তের একটি হাইওয়ে থেকে উদ্ধার করা হয়। খবর ডেইলি মেইল ও এপির।

দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের স্ট্রমাইকা এলাকার কাছে সোমবার সন্ধ্যার পর নিয়মিত টহলের সময় মেসিডোনিয়ার পুলিশ সন্দেহ হওয়ায় ট্রাককে চ্যালেঞ্জ করে। এ সময় ড্রাইভার পালিয়ে যায়। পরে ওই ট্রাকে গাদাগাদি করে কোনোরকমে ঠাঁই নেয়া ৬৪ জন বাংলাদেশি অভিবাসীকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাদেরকে আটক দেখিয়ে গেভিয়ালিয়া নামের একটি সীমান্ত শহরে রাখা হয়েছে। এদের সবাইকে গ্রিসে ফেরত পাঠানো হবে বলে মেসিডোনিয়ার সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বলকান মাইগ্রেশন রুট নামে পরিচিত এই অঞ্চল দিয়ে অধিকাংশ মানুষ সাবেক যুগোস্লাভিয়া থেকে বিভিন্ন দেশে পাচার হতো। ২০১৫ সালের দিকে এটি বন্ধ হয়ে যায়। শুরু থেকে কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে বন্ধ আছে। তবে স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, কাগজে-কলমে সীমান্ত বন্ধ হলেও এ রুটে মানবপাচার এখনও চলছে।

প্রতি বছরই বহু মানুষ উন্নত জীবনের আশায় প্রাণের ঝুঁকি নিয়েই অবৈধ পথে পাড়ি জমাচ্ছেন ইউরোপীয় দেশগুলোতে। এসব অবৈধ পথে ইউরোপ যাওয়ার চেষ্টায় প্রাণ হারাচ্ছেন প্রতি বছর অনেক বাংলাদেশী । অনেককেই মানব পাচারকারীদের হাতে বন্দি হয়ে মোটা অংকের মুক্তিপণ দিতে হচ্ছে।

মাস খানেক আগেই অবৈধভাবে ইউরোপ যাওয়ার পথে লিবিয়ায় পাচারকারীদের হাতে প্রাণ হারান ২৬ জন বাংলাদেশি ।

কিছু দিন আগে ক্রোয়েশিয়ার পুলিশের নির্যাতনে রক্তাক্ত হোন এক বাংলাদেশী, সে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে হাসপাতালে । তার পরও থেমে নেই অবৈধ পথে বাংলাদেশীদের ইউরোপ যাত্রা ।

ডেইলি মেইল ও এপি/ফ্রান্স বাংলা-

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!