গাজীপুরের নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করার পরিকল্পনার অভিযোগে বিএনপি নেতা মেজর (অব.) মিজান গ্রেপ্তার

বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজর (অব.) মিজানুর রহমান। ছবি: সংগৃহীতবিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজর (অব.) মিজানুর রহমান। ছবি: সংগৃহীত

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার পরিকল্পনার অভিযোগে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজর (অব.) মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে গুলশান-১ নম্বরের ৮ নম্বর সড়কে ১০ নম্বরের নিজের বাসা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি)।

ডিবির ভাষ্য, নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপির নেতা-কর্মীদের আওয়ামী লীগের সমর্থক সাজিয়ে জালভোট দেওয়া এবং তা ভিডিও করে ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

মিজানুর রহমানের গ্রেপ্তার হওয়ার বিষয়টি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার। তিনি বলেন, গভীর রাতে সাদাপোশাক ও নির্ধারিত পোশাকে থাকা পুলিশ মেজর মিজানুর রহমানের বাসা ঘিরে রাখে। রাত আড়াইটার দিকে তাঁর বাসার দরজা ভেঙে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর মেজর মিজানুর রহমানকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ব্যাপরে জানতে চাওয়া হলে গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিভিন্ন সংস্থা সেখানে (মেজর মিজানুর রহমানের বাসা) গিয়েছিল। কারা করেছে, এটি ফাইনালি বলতে পারব না।’

পরে ডিবি উপকমিশনার (উত্তর) মশিউর রহমান বিএনপি নেতার গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

গ্রেপ্তারের কারণ সম্পর্কে প্রথম আলোকে মশিউর রহমান বলেন, আজ গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে নানা পরিকল্পনা করেছিলেন মিজানুর রহমান। আশুলিয়ায় শিমুলিয়া ইউনিয়নে বিএনপি নেতা-কর্মীদের নিয়ে এ পরিকল্পনা করা হয় যে তাঁরা একদল আওয়ামী লীগের সমর্থক সাজবেন। আওয়ামী লীগের পোস্টার-ব্যানার বহন করবেন। তাঁরা ভোটকেন্দ্রে ঢুকে জালভোট দেওয়া, নিজেরা মারপিট করার দৃশ্য তৈরি করবেন। আর আরেক দল সেসব দৃশ্য গোপন ক্যামেরায় তুলে ছড়িয়ে দেবেন।

মশিউর রহমান আরও বলেন, বিএনপির এই গ্রেপ্তার নেতার উদ্দেশ্য ছিল নির্বাচনে জালভোট হয়েছে, মারধরের ঘটনা ঘটেছে, এটা প্রমাণ করে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করা। এতে তাঁদের দুটো উদ্দেশ্য পূরণ হতো। এক. নির্বাচন সুষ্ঠু হলে তাঁরা বলতেন, জালভোট হয়েছে। দুই. বিএনপি প্রার্থী জিতলে বলতেন, জালভোট না হলে তাঁরা আরও বেশি ভোট পেতেন।

মশিউর রহমান দাবি করেন, এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়নে গতকাল সোমবার বেলা দুইটায় মেজর মিজানুর রহমান শিমুলিয়ায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের গোপন ক্যামেরা দেন। সেগুলোর কয়েকটি উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে গ্রেপ্তারের আগে তাঁর বাসায় ডিবির অভিযানের সময় মেজর মিজানুর রহমান সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক লাইভে জানান, তাঁর বাড়ির চারপাশ ডিবি ঘিরে রেখেছে।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!