এ কেমন অধঃপতন সাবেক বৃটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর?

এ কেমন অধঃপতন সাবেক বৃটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর?

লন্ডন, ২৫ জুন (জাস্ট নিউজ): বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত একমাত্র বৃটিশ নাগরিক হিসেবে ঢাকায় হাইকমিশনারের দায়িত্ব পালন করেছেন সিলেটে জন্ম নেয়া আনোয়ার চৌধুরী। দায়িত্বকালীন সময়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়ে নজরে এসেছেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। বিগত ১/১১ সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠনে পেছনে থেকে কলকাঠি নাড়ার অভিযোগও আছে তার বিরুদ্ধে। কিন্তু তাঁর বর্তমান কর্মকান্ডে যেন সব হারাতে বসেছেন।

প্রথম অভিযোগের তীর হামলে পড়ে যখন তাঁকে অনিয়মের অভিযোগে ক্যামন আইল্যান্ডের গভর্নর পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়। এরপর থেকে আলোচনা-সমালোচনা আর অভিযোগ তাঁর পিছু ছাড়ছেনা।

মদ পান, স্ত্রীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার, কর্মকর্তাদের নির্যাতন এবং গৃহপরিচারিকাদের সঙ্গে অন্যায় আচরণ-এমন সব অভিযােগ আনোয়ার চৌধুরীরর বিরুদ্ধে উঠে এসেছে বলে জানিয়েছে বৃটেনের প্রভাবশালী ডেইলি মেইল।

এ বছরের মার্চ মাসেই গভর্নর পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছিলো আনোয়ার চৌধুরীকে। বৃটেন এবং ক্যামেন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যানুসারে জানা যায়, আনোয়ার চৌধুরীর বিরুদ্ধে গৃহকর্মী আর অফিস কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে বাজে আচরণের অভিযোগ রয়েছে।

এক গৃহপরিচারিকা অভিযোগ করেছেন, অানোয়ার চৌধুরী খালি গায়ে তাঁর পিঠ ম্যাসেজ দেবার নির্দেশ করেছেন। আর সেটাকে ঐ গৃহপরিচারিকা মোটেও যথার্থ কাজ মনে করেনি।

শুধু এটাই নয় অফিস বা গৃহ কর্মকর্তাচারীদের সাথে বাজে ব্যবহারই নয়, নিজের স্ত্রী মমিনার সঙ্গেও দুর্ব্যবহার করেন তিনি। মমিনা আনোয়ার চৌধুরীরর ১৬ বছরের ছোট।

একরাতে বয়স্ক শাশুড়ির সঙ্গেও মদ্যপান করার অভিযােগ পাওয়া গেছে।

নিজ অফিসে কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের সঙ্গে চিৎকার করে কথা বলা এবং নির্যাতনের অভিযােগ উঠে এসেছে তাঁর বিরুদ্ধে।

গৃহপরিচারিকাদের নিজের শিশু কন্যাকে যত্ন করার নির্দেশ দিলে তারা সেটা বাড়তি কাজ বলে তা প্রত্যাখান করে। এবং তারা জানায় তাদের কাজ হল পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে দেখভাল করা।

রবিবার রাতে ডেইলি মেইলের পক্ষ থেকে তাঁর সঙ্গে অভিযোগের বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো প্রকার মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান।

ঠিক কি কারণে দুই সপ্তাহ আগে এমন উল্লেখযোগ্য একজন কূটনীতিককে বরখাস্ত করা হলো তার সব বিষয় এখনো পুরো স্পষ্ট হয়নি।

ক্যামেন আইল্যান্ডসের অল পার্লামেন্টারি গ্রুপ এর এমপিরা জানিয়েছেন আনোয়রা চৌধুরীর বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে তাদের অবগত করা হয়েছে।

এদেরি একজন জানান, আমি যেটা বুঝতে পেরেছি সেটা হলো অভিযোগগুলো তাঁর আচরণগত বিষয়ে।

ফরেন এন্ড কমনওয়েলথ অফিস জানিয়েছে, অভিযোগের ভিত্তিতে আনোয়ার চৌধুরীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তদন্ত চলা অবস্থায় কোনা মন্তব্য করা যাবে না। সূত্র: ডেইলি মেইল।

(জাস্ট নিউজ/জিএস/একে/১৫৩০ঘ)

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!