ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে গেলেন ট্রাম্প, ইসরাইল-সৌদির সমর্থন

 

গত প্রায় এক মাস ধরে নানা জল্পনা কল্পনা শেষে ইরানের সাথে পরমানু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বিবিসির সংবাদ।
ট্রাম্পের আগের মেয়াদের মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ইরানের সাথে ছয় জাতির এ পরমানু চুক্তি করেছিলেন।
হোয়াইট হাউজের এক বক্তব্যে ট্রাম্প চুক্তিটিকে ‘ঘুণে ধরা ও পচাগলা’ উল্লেখ করে বলেন একজন মার্কিন নাগরিক হিসেবে এ চুক্তি তার জন্য বিব্রতকর।
ট্রাম্প বলেন, এ চুক্তির ফলে ইরানকে পারমানবিক কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেয়া হয়েছে মূলত। এর মাধ্যমে আমি আমার জনগণের সাথে প্রতারণা করতে পারি না। কারণ আমার নির্বাচনী অঙ্গীকারেই ছিল ক্ষমতায় আসলে ইরানের সাথে এ চুক্তিটি পুনর্বিবেচনা করা হবে।
চুক্তি থেকে সমর্থন তুলে নিয়ে ইরানের ওপর পুনরায় অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবেন বলে ট্রাম্প আরও জানান । ২০১৫ সালে এ চুক্তির ফলে যেটি স্থগিত হয়ে গিয়েছিল।
এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সরে যাওয়ায় চুক্তিতে সাক্ষর করা অন্যান্য দেশসমূহের মধ্যে ফ্র্যান্স, জার্মানি এবং যুক্তরাজ্য এক বিবৃতিতে জানায়, তারা যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের প্রতি দুঃখপ্রকাশ করছেন।
চুক্তিতে সাক্ষর করা ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ কূটনীতিক ফেডেরিকা মোগেরিনি বলেন, ইউই এ চুক্তি সংরক্ষণের ব্যাপারে দৃঢ়বদ্ধ।
তবে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু বলেন, ‘বিধ্বংসী’ এ চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সরে দাঁড়ানোর ট্রাম্পের ‘কঠোর’ সিদ্ধান্তের প্রতি তার পরিপূর্ণ সমর্থন রয়েছে।
একইভাবে জাতিসংঘে মার্কিন প্রতিনিধি নিক্কি হ্যালি বলেন, প্রেসিডেন্ট (ট্রাম্প) একেবারে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
এদিকে চুক্তি থেকে সরে যুক্তরাষ্ট্রের সরে আসার ট্রাম্পের ঘোষণার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেন, ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের কোন ধরণের সংঘাতের সূচনা হলে এর পরিনতি হবে ভয়াবহ এবং এর দায় যুক্তরাষ্ট্রকেই নিতে হবে।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!