ইতালি থেকে ৬ লাখ অভিবাসীকে বের করে দেবেন বেরলুসকোনি

ইতালি থেকে ৬ লাখ অভিবাসীকে বের করে দেবেন বেরলুসকোনি

বিদেশী অভিবাসীদের ‘সামাজিক বোমা’ (সোশ্যাল বোম্ব) হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন ইতালির সাবেক প্রধানমন্ত্রী সিলভিও বেরলুসকোনি। তিনি বলেছেন, ইতালিতে এসব বোমা বিস্ফোরিত হওয়ার জন্য প্রস্তুত। তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে তিনি বলেন, যদি পুনর্নির্বাচিত হন তাহলে ইতালি থেকে ৬ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে ফের করে দেবেন। উল্লেখ্য, আয়কর ফাঁকির অভিযোগে আগামী জাতীয় নির্বাচনে নিষিদ্ধ হয়েছেন ৮১ বছর বয়সী বেরলুসকোনি। তবে তিনি জোট বেঁধেছেন মধ্য-ডানপন্থিদের সঙ্গে। যদি তার এই জোট ক্ষমতায় আসে তাহলে তিনি ইতালি থেকে ওই অভিবাসীদের বের করে দেয়ার কথা বলেন।

সিলভিও বেরলুসকোনি একটি টেলিভিশনে সাক্ষাতকারে এসব কথা বলেন বলে খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন ডেইলি মেইল। এতে বেরলুসকোনি বলেন, অভিবাসন একটি জরুরি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কয়েক বছর বাম ঘরানার সরকার ক্ষমতায় থাকায় ইতালিতে এখন অবৈধ অভিবাসীর সংখ্যা ৬ লাখ। এসব শ্রমিকের ইতালিতে থাকার কোন অধিকার নেই। উল্লেখ্য, গত শনিবার ইতালির উত্তরাঞ্চলীয় শহর মেসেরাতায় একজন উগ্র ডানপন্থি গুলি করে ৬ জন আফ্রিকানকে। এ প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বেরলুসকোনি বলেন, পরিস্থিতিকে পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আনার বিষয়টিকে আমরা সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারে রেখেছি। আমরা একবার সরকারে গেলে নিরাপত্তা খাতে বিভিন্ন রিসোর্সে বিনিয়োগ করবো। আমরা পুলিশের উপস্থিতি বাড়াবো। আবারো চালু করবো ‘সেফ স্ট্রিট’ উদ্যোগকে। পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি সেনারাও আমাদের রাজপথগুলোতে প্রহরা দেবেন। এ সাক্ষাতকারে তিনি অভিবাসন ইস্যুতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমালোচনা করেন। তিনি মনে করেন ইতালিতে যে পরিমাণ অভিবাসী প্রবেশ করেছে এবং তার যে দায়ভার বহন করছে দেশটি তার ভাগ নিতে ব্যর্থ হয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। সিলভিও বেরলুসকোনি বলেন, বর্তমানে ব্রাসেলস অথবা বিশ্বের কাছ থেকে কিছুই প্রত্যাশা করে না। আমরাই এটাকে আবার গড়ে তুলবো। ওদিকে শনিবারের ওই গোলাগুলির পরে ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন ইতালির বর্তমান প্রধানমনত্্রী পাওলো জেন্টিলোনি। তিনি বলেছেন, ঘৃণা ও সহিংসতা আমাদেরকে আলাদা করতে পারবো না। আগামী ৪ঠা মার্চ দেশটিতে নতুন নির্বাচন হওয়ার কথা। সেই নির্বাচচে জয়ী হতে দুটি উগ্র ডানপন্থি দলÑ নর্দান লীগ এবং ব্রাদার্স অব ইতালি’র সঙ্গে জোট গঠন করেছে সিলভিও বেরলুসকোনির দল ফোরজা ইতালিয়া। এই নির্বাচনে বেরলুসকোনি নিষিদ্ধ হলেও নির্বাচনে বড় রকম প্রভাব ফেলবেন বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা। এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে গত বছর ইতালিতে প্রবেশ করেছে প্রায় এক লাখ ১৯ হাজার অভিবাসী। ২০১৬ সালের তুলনায় যা শতকরা ৩৫ ভাগ কম।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!