ইতালিতে ৬ বাংলাদেশী মিলে ১ বাংলাদেশীকে পিটিয়ে হত্যা !

বাংলাদেশের ইজ্জত সম্ভ্রম ইতালির মাটিতে দফায় দফায় বিনষ্টের ধারাবাহিকতায় নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে এমন এক সময় যখন বাংলাদেশ থেকে ইতালিতে করোনা আমদানির জন্য ইতালিয়ানদের কাছে বাংলাদেশি মানেই ‘ভাইরাস বোমা’। মারামারি কাটাকাটি খুন ধর্ষনের ধারাবাহিকতায় ১৮ জুলাই শনিবার রাতে বাণিজ্যিক রাজধানী মিলানে নৃশংসভাবে খুন হয়েছেন রশিদ হাওলাদার (৪৪) নামে এক বাংলাদেশি। হতভাগ্যের বাড়ি মাদারীপুর জেলায়। খুনী ৬ বাংলাদেশিকে ধরতে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, মিলান মহানগরের প্রাণকেন্দ্রে স্তাদেরা এলাকায় মন্তেগানি রোডে পৌর বাজারের সামনে স্থানীয় সময় রাত ৯টা ২০ মিনিটে ট্রাজেডির সূত্রপাত। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে ৬ বাংলাদেশির একটি সংঘবদ্ধ দল হাতুড়ি ও চেইন দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক ভাবে জখম করে রশিদ হাওলাদারকে। পুলিশের প্রথম গাড়ি এবং এম্বুলেন্স আসার আগেই খুনিরা দ্রুত পালিয়ে যায় ঘটনাস্থল থেকে। স্থানীয় সান পাওলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরই না ফেরার দেশে পাড়ি জমান রশিদ হাওলাদার।

হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত জিনিস জব্দ করেছে পুলিশ
ইতালীয় পুলিশের সায়েন্টিফিক টিম ঘটনাস্থল থেকে হাতুড়ি ও চেইন সহ খুনিদের ফেলে যাওয়া বেশ কিছু আলামত উদ্ধার করেছে। ২ খুনিকে ইতোমধ্যে সনাক্ত করেছে পুলিশ। সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করার পর খুনিদের ধরার চেষ্টা চলছে।

নিহত বাংলাদেশির ইতালিতে বৈধ স্টে পারমিট (পেরমেসসো দি সোজ্জর্নো) ছিলো। হত্যাকাণ্ডের ঘটনাস্থল স্তাদেরা এলাকাটি পুলিশের খাতায় আগে থেকেই ‘ক্রাইম জোন’ হিসেবে চিহ্নিত। উত্তর আফ্রিকার অভিবাসীরা এই এলাকায় ছোটখাটো অপকর্ম করে থাকলেও খুনের রেকর্ড করলো বাংলাদেশিরা।

মাঈনুল ইসলাম নাসিম, ইতাল , ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!