ইতালিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডিক্রি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ, বিপাকে বাংলাদেশিরা

জমির হোসেন, ইতালি থেকে 

বিক্ষোভ সমাবেশ

ইতালিতে বর্ণবাদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডিক্রি বাতিলের দাবিতে আবারও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন বাংলাদেশিসহ অন্য অভিবাসীরা।

১০ অক্টোবর এ বিক্ষোভ সমাবেশ করা হয়। বাংলাদেশি ইতালিয়ান নাগরিকসহ অন্য অভিবাসীরা বিক্ষোভ সমাবেশে অংশগ্রহণ করেন। হাজার হাজার বাংলাদেশি ও ইতালিয়ান নাগরিক ফেস্টুন, ব্যানার হাতে কালো আইনবিরোধী স্লোগান দিয়ে নতুন আইন বাতিলের দাবি জানান।

ইতালিতে অভিবাসী ও নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করতে নতুন এ আইন অনুমোদন করেছে দেশটির মন্ত্রিপরিষদ।

২৪ সেপ্টেম্বর নতুন আইনটি অনুমোদন করা হয়। এর পর ৪ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি সেরজো মাতারেল্লা সই করলে নতুন আইন কার্যকর হয়। এ আইন অনুমোদন হওয়ায় বাংলাদেশি ও অন্য দেশের অভিবাসীরা চরম বিপাকে পড়েন।

নতুন আইনে সন্ত্রাসবাদ, মানবপাচার ও মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের কঠোর শাস্তির বিধান রাখেন।

বেশ কয়েক বছর ধরে ইতালিতে অভিবাসী সমস্যা চলছে। চলমান এ অভিবাসী সমস্যা সমাধান করতে বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও সালভিনি বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন। তাই অভিবাসীদের অপরাধ দমনে এ পদক্ষেপ নেন।

সরকারের লক্ষ্য- আইন প্রণয়ন করে ইতালির সব রোম ক্যাম্প বন্ধ করা। ব্যক্তি ও আন্তর্জাতিক সম্মেলনের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করা। নতুন আইন প্রসঙ্গে ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত আব্দুস সোবহান সিকদার বলেন, অবৈধদের জন্য অর্থ বরাদ্দ হয়েছে।

তবে বাংলাদেশিদের জন্য এ আইন তেমন কোনো প্রভাব পড়বে না। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এ আইন বাংলাদেশিদের চিন্তার কোনো কারণ হতে পারে না। এ ব্যাপারে সামাজিক সংগঠন ইল ধূমকেতু অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক বাংলাদেশ সমিতির সভাপতি নুরে আলম সিদ্দিকী বাচ্চু বলেন, এটি একটি বর্ণবাদী আইন। এটি কার্যকর হওয়ায় বাংলাদেশি অভিবাসীরা চরম সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন।

ফলে ভবিষ্যতে অভিবাসীদের ইতালিতে থাকা কঠিন হয়ে যাবে। তাই এ কালো আইন বাতিলের দাবিতে বাংলাদেশি, ইতালিয়ান, আফ্রিকার নাগরিকসহ অন্য অভিবাসীরা ধারাবাহিক বিক্ষোভ সমাবেশ চালিয়ে যাচ্ছেন। ধারাবাহিক আন্দোলনের অংশ হিসেবে শনিবার ফের বিক্ষোভ সমাবেশে অভিবাসীরা কালো আইন বাতিলের দাবি জানান।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!