ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ নিয়ে বেলজিয়ামে ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ম্যাক্রোঁর জরুরি সংবাদ সম্মেলন

বেলজিয়ামের ব্রুক্সেলে ন্যাটোর সদস্য দেশগুলোর এক জরুরি সভা শেষে প্রেস কনফারেন্সে সংক্ষিপ্ত ও গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন  ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। বক্তব্য শেষে তিনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।
ম্যাক্রোঁ বলেন,আমারা রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইউক্রেনের সরাসরি যুদ্ধ সঙ্গী( Cobelligérant) হবো না। এছাড়া ইউক্রেনকে সামরিক ও মানবিক সকল সহায়তা করা হবে।
আমরা কেবল ঐ পর্যন্ত রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা দিবো যে পর্যন্ত আমাদের অর্থনীতির উপর নিষেধাজ্ঞার কোন প্রভাব না পড়ে।
ইইউ এর মাটিতে ইতিমধ্যে ইউক্রেনের প্রায় ৩৫লাখ অধিবাসী রাজনৈতিক আশ্রয় আবেদন করেছে।
আগামী ১২ থেকে ১৮ মাসের মধ্যে আমরা এমন একটি খাদ্য সংকটে পড়তে যাচ্ছি যা আমরা এর আগে কখনো পড়িনি। আগামীতে সংকট আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে।
রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞার প্রভাব কার্যকর হতে শুরু করেছে। রাশিয়াতে ফ্রান্সের যে সকল কোম্পানি আছে তারা যদি ফ্রান্সের নিষেধাজ্ঞার সেক্টর গুলোতে পড়ে তাহলে তাদের উচিৎ ফ্রান্সের নেয়া সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা।
চায়না আমাদের জানিয়েছে তারা ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার যুদ্ধকে সমর্থন করেনা এবং তারা যুদ্ধ থামানোর সকল সম্ভাব্য আলোচনার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।
বেলজিয়ামের ব্রুক্সেলে ন্যাটোর জরুরি সভায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, যদি রাশিয়ার বিরুদ্ধে রাসায়নিকের অস্ত্র ব্যবহারের প্রমাণ পাওয়া যায়,তাহলে ন্যাটোর পক্ষ থেকে এর সমুচিত জবাব দেয়া হবে।
এসপ্তাহের শুরুতে জেলনস্কি অভিযোগ করেন যে রাশিয়া ইউক্রেনে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করছে। রাশিয়া যুদ্ধে ফসফরাসের অস্ত্র ব্যবহার করছে বলে মিডিয়াতে প্রপাগাণ্ডা ছড়িয়ে পড়ার পর বেলজিয়ামের ব্রুক্সেলে জরুরি সভায় বসে ন্যাটো সদস্য রাষ্ট্রগুলোর প্রধানগণ। জি২০ থেকে রাশিয়াকে বাদ দেয়ার বিষয়ে জো বাইডেন সম্মতি দিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!