আদালত প্রাঙ্গণে বাবা-ছেলের চুমুর দৃশ্য দেখে ফারুকীর মন্তব্য

আজ বৃহস্পতিবার সকালে ফারুকী তার ফেসবুকে লিখেন- ’গত কিছুদিন যাবত যা হচ্ছে, তা দেখে একটা কথাই বারবার মনে হচ্ছিলো, বাংলাদেশ নিডস এমপ্যাথি। কাউকে গুম করার আগে, আঘাত করার আগে ভাবা দরকার এই আঘাত আমার উপর আসলে কেমন লাগবে আমার। কোনো বাবাকে সন্তানের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়ার আগে ভাবা দরকার, আমার ক্ষেত্রে এটা হলে কেমন লাগবে।

কালকে কোর্ট প্রাঙ্গণে হাতকড়া লাগানো বাবার সন্তানকে চুমু খাওয়ার ছবিটা দেখে এক বিনিদ্র রাত কেটেছে আমার। বাবারা সন্তানদের কাছে সুপারম্যান। সেই সুপারম্যানের এই অসহায়ত্ব, আমাকে পরাজিত করেছে। আমি ভাবছিলাম, “উই নিড এমপ্যাথি”! এমনকি যে পুলিশ ভাই তাকে বেঁধে নিয়ে যাচ্ছিলেন তারও হয়তো এরকম একটা বাচ্চা আছে। তারও অবকাশ আছে ভাবার, আহারে আমার সাথে এরকম হলে আমার ভেতরটায় কি হতো?’
এছাড়াও গতকাল আহত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ঢাকা-৩ আসনে ধানের শীষ প্রার্থী গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে দেখতে তার অফিসে গিয়েছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা নসরুল হামিদ বিপু ও কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন আহমেদ। রাজনীতিবিদদের এমন সম্পর্ককে সাধুবাদ জানিয়েছে ফারুকী লিখেন- ’নসরুল হামিদ বিপু ভাই আহত গয়েশ্বর রায়কে দেখতে গিয়ে যে কথাগুলো বললেন, আমরা আশা করবো এই স্পিরিটটা সারা দেশে ছড়িয়ে পড়বে। এই রাজনীতিই আমরা ২০১৮-তে দেখতে চাই। বিপক্ষ প্রার্থী বা সমর্থকদের মারধর বা গ্রেপ্তারের রাজনীতি না। এই দেশে দুই পক্ষকেই থাকতে হবে। কেউ কাউকে নির্মূল করতে পারবো না।’
সবশেষে ফারুকী তার ফেসবুকে লিখেন, ’এমপ্যাথি, এমপ্যাথি ইজ হোয়াট উই নিড। এটা একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার পরে বলেছিলাম, এখনও বলি।’

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!