অষ্ট্রেলিয়া:বাংলাদেশে গণতন্ত্রের উত্তরণের জন্য নাগরিক সম্পৃক্ততার বিকল্প নেই: সেমিনারে অতিথিবৃন্দ

সিডনি,গত ২২ এপ্রিল ২০১৮ রবিবার সিডনীর বেলমোর এলাকায় অবস্থিত ক্যান্টারবুরী লীগ ক্লাবের ব্লুবেরি হিলস কনফারেন্স রুমে বাংলাদেশ পলিসি ফোরাম অষ্ট্রেলিয়ার উদ্যোগে এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। ‘বাংলাদেশের গণতন্ত্রঃ অনিশ্চিত ভবিষ্যত এবং সম্ভাব্য উত্তরণের পন্থা’ শিরোনামে আয়োজিত এ সেমিনারে উপস্থাপিত মূল প্রবন্ধের আলোচনায় আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।বর্তমান বাংলাদেশে গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও সুশাসনের করুণ অবস্থা এবং সম্ভাব্য ভবিষ্যত কর্মপন্থা প্রসঙ্গে সকলেই ঐক্যমত পোষণ করে বলেন, চলমান অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য সাধারণ নাগরিকদের গণসম্পৃক্ততা অর্জন করা গেলেই তখন ভালো একটি ভবিষ্যতের আশা করা সম্ভব।

অষ্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশীদের কমিউনিটি সংগঠন বাংলাদেশ পলিসি ফোরাম অষ্ট্রেলিয়ার আয়োজনে ২০১৩ সালে ইউনিভার্সিটি অফ নিউ সাউথ ওয়েলসে আয়োজিত অনুষ্ঠানের ধারাবাহিকতায় এটি ছিলো তাদের আয়োজিত দ্বিতীয় সেমিনার। এ বছর সেমিনারের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিলো ‘দ্য ডেমোক্রেসি অফ বাংলাদেশঃ এন আনসারটেইন ফিউচার এন্ড পসিবল ওয়ে আউট’।

পলিসি ফোরামের সভাপতি মোহাম্মদ মোসলেহউদ্দিন আরিফের সভাপতিত্বে এবং কোঅর্ডিনেটর একেএম আসাদুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সেমিনারটিতে কী-নোট পেপার উপস্থাপন করেন চার্লস স্টুয়ার্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষক শিবলী মুহাম্মদ আবদুল্লাহ। তাঁর বিশ্লেষণে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের ধারাবাহিক বিবর্তন, বর্তমান পরিস্থিতির ফলাফলসমূহ এবং পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে গণতন্ত্রের উত্তরণের জন্য পরিচালিত অহিংস গণআন্দোলনের উদাহরণসমূহে উঠে আসে।

এরপর সম্পুরক আরেকটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ভয়েস অফ বাংলা রেডিও পরিচালক ড. নার্গিস বানু। তিনি বর্তমান সরকারের স্বৈরাচারী আচরণের শিকার জনগণের দুর্ভোগ এবং সম্ভাব্য উত্তরণের পন্থা হিসেবে সামগ্রিক গণআন্দোলনের প্রয়োজনীয়তা প্রসঙ্গে আলোকপাত করেন।

পরবর্তীতে এ বিষয়ের উপর মুক্ত আলোচনায় অংশ নিয়ে বক্তব্য রাখেন ফোরামের উপদেষ্টা ও বিএনপি নেতা মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, কমিউনিটি নেতা লিয়াকত আলী স্বপন, বিএনপি অষ্ট্রেলিয়ার নেতা নিগার এলাহী চৌধুরী, ফ্রিডম পার্টি নেতা এইচ এম ইসমাইল, লেবার পার্টি লাকেম্বার প্রতিনিধি মোহাম্মদ লুৎফুল কবির,

সুপ্রভাত সিডনী সম্পাদক ড. ফারুক আমিন, স্বাধীনকণ্ঠ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুমন, আমরা বাংলাদেশী সংগঠনের নেতা ইবরাহিম খলিল মাসুদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা এম এন মাসুম, নিউ সাউথ ওয়েলস ইঞ্জিনিয়ারস এসোসিয়েশনের নেতা মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান প্রমুখ।

বক্তাদের আলোচনায় বারবার উঠে আসে প্রতিবেশী দেশের ভূ-রাজনৈতিক স্বার্থবাদী আধিপত্য বাস্তবায়নের কারণে বাংলাদেশের গণতন্ত্র হুমকির মুখে পড়ার বিষয়টি। তারা বলেন, এ দেশের স্বাধীনতার মূল চেতনা ছিলো সব বৈষম্য দূর করে গণতন্ত্র ও গণমানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা।

অথচ স্বাধীনতা অর্জনের প্রায় অর্ধদশক পরে এসে আজকের বাংলাদেশে এদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব নিয়েই নতুন করে প্রশ্ন উঠেছে। একমাত্র গণতন্ত্রের বাস্তবায়নের মাধ্যমেই অসংখ্য মানুষের রক্ত ও ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত এ স্বাধীনতার সুফল অর্জন করা সম্ভবপর হতে পারে ।

এছাড়াও সেমিনারটিতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, কমিউনিটি সংগঠন ও গণমাধ্যমের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। মতবিনিময়ে অংশগ্রহণ করে নব্বই দশকের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রনেতা মোহাম্মদ রুহুল আমিন, বিএনপি নেতা মোহাম্মদ মোবারক হোসেন, স্বদেশবার্তা সম্পাদক আউয়াল খান, মোহাম্মদ জামিল হোসেন, যুবদল নেতা ইয়াসির আরাফাত সবুজ, খাইরুল কবির পিন্টু, মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম শামীম, মোহাম্মদ জসিম উদ্দীন, আবদুস সামাদ শিবলু, কমিউনিটি নেতা মোহাম্মদ রাশেদ খান, এস এম খালেদ, আরিফুর রহমান সহ উপস্থিত অংশগ্রহণকারীবৃন্দ।

– সুপ্রভাত সিডনি রিপোর্ট –

Tue, Apr 24, 2018

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!