অধ্যাপক না হয়েও অধ্যাপক লেখায় আ’লীগের সাবেক প্রতিমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

অধ্যাপক না হয়েও নামের আগে অধ্যাপক ব্যবহারের অভিযোগে সাবেক প্রতিমন্ত্রী আবু সাইয়িদের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা হয়েছে। সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ড. এসএম নাসিফ শামস বাদী হয়ে ঢাকার মহানগর হাকিম আদালতে মামলাটি করেন।

সাবেক প্রতিমন্ত্রী আবু সাইয়িদ

সাবেক প্রতিমন্ত্রী আবু সাইয়িদ। ফাইল ছবি

ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে শেরেবাংলা নগর থানার ওসিকে মামলাটি তদন্তের আদেশ দেন। একই সঙ্গে ১০ জানুয়ারি এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য করেন। মামলার বাদী ড. এসএম নাসিফ শামস সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকুর ছেলে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, অধ্যাপক আবু সাইয়িদ কোনো কলেজে কখনও অধ্যাপনা করেছেন বলে সমাজের মানুষ বা বাদীর জানা নেই।

তবে খণ্ডকালীন প্রভাষক হিসেবে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কিছু সময়ের জন্য কর্মরত ছিলেন বলে জনশ্রুতি আছে। আসামি অধ্যাপক না হয়েও বিভিন্ন জায়গায়, বই-পুস্তকে এবং নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের হলফনামায় অধ্যাপক পদবি ব্যবহার করেন। তিনি এর মাধ্যমে সমাজের মানুষের কাছে বিষয়টি প্রচার করে ভোট পাওয়ার পাঁয়তারাসহ সাধারণ জনগণকে বিভ্রান্ত করে চলেছেন। নিয়মিতভাবে ১৫ বছর কোনো কলেজে শিক্ষকতা না করলে অধ্যাপক হওয়া যায় না।

বর্তমানে অভিযুক্ত ব্যক্তি গণফোরাম নেতা, ঐক্যফ্রন্ট থেকে ধানের শীষে এমপি পদপ্রার্থী হয়েছেন। আসামি বিভিন্ন বই লিখেছেন।

তবে কোনো বইয়ের শিরোনামে কোন কলেজে অধ্যাপনা করেছেন- এমন কোনো টাইটেল লেখকের পরিচয় হিসেবে বইয়ে লেখেননি। অধ্যাপক না হয়েও অধ্যাপকের পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে আসছেন আবু সাইয়িদ। তিনি জনগণের কাছে ভুল তথ্য প্রচার করে জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন। এতে আসামি দণ্ডবিধির ৪১৯/৪২০ ধারায় অপরাধ করেছেন।

সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু (আওয়ামী লীগ) ও অধ্যাপক আবু সাইয়িদ (ঐক্যফ্রন্ট) পাবনার বেড়া থেকে জাতীয় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

যুগান্তর রিপোর্ট

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!