শপথ নেয়ার বিষয়ে যা বললেন ভিপি নুর ও আখতার

নানা নাটকীয় ঘটনা প্রবাহের মধ্য দিয়ে বয়ে যাওয়া ডাকসু নির্বাচনে এবার যে প্রশ্নটি সামনে এসেছে তাহলো, কোটা আন্দোলনকারীদের সংগঠন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতা নুরুল হক নুর ও একই প্যানেল থেকে সমাজসেবা সম্পাদক পদে নির্বাচিত আখতার হোসেন শপথ নেবেন কি-না।

শপথ নেয়ার বিষয়ে যুগান্তর লাইভে যা বললেন ভিপি নুর ও আখতার (ভিডিও)

দেশের সবকটি গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে ঘুরপাক খাচ্ছে এই একই প্রশ্ন।

বুধবার (১৩ মার্চ) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে এ প্রশ্নের উত্তর জানতে যুগান্তরের ডাকসু নির্বাচনের নবনির্বাচিত সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর ও সম্পাদক আখতার খানের সঙ্গে যুক্ত হন।

লাইভে এসে যুগান্তর প্রতিনিধির সঙ্গে গত সোমবার অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচন ও তার ভিপি পদে শপথ গ্রহণ বিষয়ে কথা বলেন তিনি।

এসময় তার সঙ্গে কোটা সংস্কার আন্দোলনের সহযাত্রী ফারুক হোসেন ও রাশেদ ছিলেন।

দীর্ঘ ২৮ বছরে প্রতীক্ষিত দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠের ভিপি হিসেবে জয়ী হওয়ার অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অনুভূতি ব্যক্ত করার মতো কিছুই নেই। কারণ এই নির্বাচনের ১০টি প্যানেলের মধ্যে ৯টি প্যানেলই নির্বাচন বর্জন করেছে।’

এমন নির্বাচনে হতাশা ব্যক্ত করে নুরুল হক বলেন, ‘এই নির্বাচনে যে পরিমান কারচুপি হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো স্থানে প্রত্যাশিত ছিল না। যে কারণে আমি আশা ব্যক্ত করছি এই নির্বাচন পুনরায় করতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিবেচনা করবে।’

এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, ‘আমি ও আমার সংগঠনের সহযোদ্ধারা সবসময় শিক্ষার্থীদের চাওয়া-পাওয়াকে প্রধান্য দিয়েছি। আমরা সবসময় শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে তাদের পাশে রয়েছি।’

নির্বাচিত ভিপি হিসেবে শপথ নিবেন কি-না প্রশ্নে নুরুল হক বলেন, ‘আমার এই জয়ের পেছনে এককভাবে আমার কোনো কৃতিত্ব নেই, সংগঠনের সহযোদ্ধাদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও ভালোবাসায় এই জয় অর্জন হয়েছে। তাই শপথ নেব কি-না সেই বিষয়ে আমার সহযোদ্ধা, শুভাকাঙ্ক্ষী ও ছাত্রসমাজের সঙ্গে আলোচনা করে তারা যেটা ভালো মনে করেন আমি সেই সিদ্ধান্ত নেব।’

তিনি যোগ করেন, ‘বিশেষকরে আমাদের দীর্ঘদিনের বিভিন্ন আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত শিক্ষার্থীরা যদি আমাকে তাদের প্রতিনিধি হিসেবে শপথ নিতে বা দায়িত্ব নিতে বলে তবে আমি শপথ নেব তারা না চাইলে নেব না।’

এরপর যুগান্তরের সঙ্গে যুক্ত হন প্রশ্ন ফাঁসের বিরুদ্ধে আন্দোলনে ৫৪ ঘণ্টা অনশনকারী সেই ঢাবি শিক্ষার্থী আখতার খান।

তিনি এবার ডাকসু নির্বাচনে একই প্যানেল থেকে সমাজ সেবা পদে নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচন কেমন হয়েছে প্রশ্নে আখতার খান যুগান্তরকে বলেন, ‘ডাকসু নির্বাচন কেমন হয়েছে তা সাংবাদিক ভাইয়েরা উপস্থাপন করেছেন। বিশেষকরে ছাত্রীরা এই নির্বাচনের মুখোশ খুলে দিয়েছে।’

এসময় তিনি নির্বাচনের দিনের সকালে কুয়েত মৈত্রী হলে প্রাপ্ত সিলযুক্ত বস্তাভর্তি ব্যালট পেপার ও রোকেয়া হলের কেন্দ্রের বাইরে ব্যালট বাক্স পাওয়ার কথা কথা উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, ‘ভোট গণণায় এতো সময় নেয়া হয়েছে যে আমাদের বিশ্বাস এই নির্বাচনে কারচুপি ও জালিয়াতির আশ্রয় নেয়া হয়েছে।’

শপথ নেবেন কি-না প্রশ্নে তিনিও নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরের সঙ্গে একমত পোষণ করে বলেন, ‘দেখুন আমরা সবসময় সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে ছিলাম। তারা যদি চায় আমাদের শপথ নেয়া উচিত তাহলে নেব আর না চাইলে নেব না।’

যুগান্তরের সঙ্গে ভিপি নুরুল হক নুর ও আখতার খানের সেই লাইভটি দেখুন-

  যুগান্তর রিপোর্ট 

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!